মেইন ম্যেনু

দেবর-ভাবির অবাধ পরকীয়া, অবশেষে একসঙ্গে আত্মহত্যা

মানিকগঞ্জে দীর্ঘদিন পরকীয়ার পর অবশেষে একসঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন দেবর-ভাবি। সদর উপজেলার হাজীনগর কসবা গ্রামে সোমবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে। তারা হলেন : দেলোয়ার হোসেন (২১) ও সুইটি আক্তার (২০)। দেলোয়ার ওই গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে, সুইটি দেলোয়ারের চাচাতো ভাই নজরুল ইসলামের স্ত্রী।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কৃষ্টপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ জানান, চাচাতো ভাই নজরুল প্রবাসে থাকার সুযোগে তার স্ত্রী সুইটির সঙ্গে দেলোয়ারের পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্প্রতি বিষয়টি জানাজানি হলে দেলোয়ারকে অন্যত্র বিয়ে করাতে চায় তার পরিবার।

অন্যদিকে সুইটি স্বামীকে তালাক দিয়ে দেলোয়োরকে বিয়ে করতে চান। কিন্তু দেলোয়ার তার পরিবারকে রাজি করাতে পারছিলেন না। এ নিয়ে কয়েক দিন ধরে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য, মান-অভিমান চলছিল।

তিনি জানান, সোমবার রাত ১১টার দিকে সুইটির ঘরে প্রবেশ করেন দেলোয়ার। রাত ১টার দিকে বাড়ির লোকজন টের পেয়ে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকেন। তখন দুটি আড়ার সঙ্গে একজন ওড়না ও অন্যজনকে রশি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে শেষরাতের দিকে লাশ উদ্ধার করে।

মানিকগঞ্জ সদর থানার ওসি জানান, দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে, তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

ছবি প্রতীকী