মেইন ম্যেনু

দেবহাটায় ইছামতি নদী থেকে আসা কুমিরটি অবশেষে ধরা পড়লো

দেবহাটার ইছামতি নদী থেকে উঠে আসা কুমিরটি অবশেষে বন্য প্রানী ব্যবস্থাপনা ও সংরক্ষন বিভাগ এবং স্থানীয় জনগনের হাতে ধরা পড়লো। কুমিরটি ধরে বন কর্মকর্তারা খুলনা বয়রাস্থ বন অফিসে নিয়ে গেছে। সেখানে পর্যবেক্ষন শেষে কুমিরটি সুন্দরবন ও করমজলে ছেড়ে দেয়া হবে।

স্থানীয়রা জানায়, গত সোমবার রাতে কুমিরটি দেবহাটা সদরের থানার পাশে সুশীলগাতি গ্রামে ইছামতি নদীর পাশে অবস্থিত ঘের থেকে মাছ খেয়ে আবারো নদীতে যেতে গেলে স্থানীয় জেলেরা দেখতে পেয়ে কুমিরটিকে লাঠি দিয়ে বাড়ি মারলে কুমিরটি ঐ মৎস্য ঘেরে পড়ে যায়। পরে মঙ্গলবার সকালে দেবহাটা থানার ওসি আশরাফ হোসেন বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তহমিনা খাতুনকে অবহিত করলে তিনি খুলনা বন বিভাগে যোগাযোগ করেন।

বুধবার সকালে খুলনা বয়রাস্থ বন্যপ্রানী ব্যবস্থাপনা ও সংরক্ষন বিভাগের অনলাইফ রেঞ্জার লুৎফর পারভেজ, ফরেষ্টার আজাদ কবীর, জুনিয়র ষ্কাউট মিঠুন সরকার, চালক আবুল কালাম ও দেলোয়ার হোসেন কুমিরটি ধরার জন্য আসেন। কিন্তু স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় উক্ত ঘেরে অনেক চেষ্টা করেও কুমিরটিতে পাওয়া যায়। তখন ধারনা করা হয় কুমিরটি লোকজনের চোখকে ফাকি দিয়ে নদীতে চলে গেছে।

কিন্তু বুধবার রাতে ঐ ঘেরের পাশে একটি পুকুরে কুমিরটি দেখতে পায় এক যুবক। আবারো বৃহষ্পতিবার সকালে বন কর্মকর্তা, দেবহাটা থানার ওসি আশরাফ হোসেন, স্থানীয় চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সহ স্থানীয় লোকজনের অদম্য সাহসে এবং সহযোগীতায় কুমিরটি ধরা সক্ষম হয়।

পরে কুমিরটিকে দেবহাটা থানা চত্বরে নিয়ে আসলে নারী পুরুষ সহ হাজারো মানুষ ভিড় করে কুমিরটি দেখতে। পরে কুমিরটিকে খুলনা বনবিভাগ অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়।



« (পূর্বের সংবাদ)