মেইন ম্যেনু

দেশে প্রতিবছর ক্যান্সারে আক্রান্ত হয় ‘৯০০০’ শিশু

দেশে প্রতিবছর আনুমানিক ৭ থেকে ৯ হাজার শিশু ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। এরমধ্যে ৫শ’য়েরও কম চিকিৎসা সেবা পায়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ কয়েকটি হাসপাতালে এ রোগে আক্রান্তদের জন্য সিট রয়েছে মাত্র ৯০টি।

সোমবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবের আন্তর্জাতিক শৈশবকালীন ক্যান্সার দিবস- ১৬ (ইন্টারন্যাশনাল চাইল্ডহুড ক্যান্সার ডে-১৬) উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

আলোচনা সভার আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের পেডিয়েট্রিক হেমাটোলজি এবং অনকোলজি বিভাগ। এ সময় বাংলাদেশে ক্যান্সার চিকিৎসার নানা প্রতিবন্ধকতা নিয়ে আলোচনা করেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

সরকার ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে জাতীয় অধ্যাপক এমআর খান বলেন, ‘সবার পক্ষ থেকে আপিল করছি- ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা খরচে সহযোগিতা করার জন্য একটি ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করা হোক। দেশের মানুষ যে যার সামর্থ অনুযায়ী সেই ট্রাস্টে অর্থ দিবে। বাঙালি গরিব হতে পারে, কিন্তু তাদের মন বৃহৎ।’

তিনি বলেন, ‘বিশেষ এই রোগে আক্রান্তদের যথাযথ চিকিৎসেবা নিশ্চিত করতে হাসপাতালগুলোতে সিট বৃদ্ধি করতে হবে। ক্যান্সারের যাবতীয় ওষুধের প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি অবকাঠামোগত উন্নয়ন করতে হবে।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করে সবাই মিলে যদি ক্যাম্পেইন করতে পারি তাহলে দেশবাসী নিশ্চই সহযোগিতা করবে। এজন্য চিকিৎসকদের সংগঠিত হয়ে কাজ করতে হবে। আমি আমার জায়গা থেকে কাজ করবো।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিএসএমএমইউ এর উপাচার্য কামরুল হাসান খান, ক্রিড়া বিষয়ক উপমন্ত্রী আরিফ খান জয় প্রমুখ।