মেইন ম্যেনু

দেহের থেকে পা বড় যার

হঠাৎ করে যদি একদিন দেখেন আপনার শরীরের কোনো একটি অঙ্গ অবিশ্বাস্যভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে কী করবেন আপনি? ভয়ে নিশ্চয় কুঁকড়ে যাবেন। কিন্তু এই ভয়কে জয় করেছেন ৪১ বয়সী মেন্ডি সেলারস। জন্মের পরই তার পা ছিল তার শরীরে তুলনায় ৫ গুণ বড়। ডাক্তারা আশঙ্কা করছিলেন তিনি হয়তো বাঁচবেন না।

মেন্ডির অবস্থা এতটাই খারাপ ছিলো যে তার মা তাকে দেখতে পান জন্মের ২ সপ্তাহ পর। ডাক্তাররা আশঙ্কা করছিলেন তার এই বিরল রোগের কারণ PIK3CA জিন। এই রোগে আক্রন্ত রোগীর চামড়া, হাড়, ফ্যাটি টিস্যু কয়েক গুণ হারে বৃদ্ধি পেতে থাকে।

মেন্ডির ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম ছিলো না। শরীরে নিচের অংশের ওজন ছিলো প্রতি মিটারে ১৭ টি পাথরের সমান। এত কিছুর পরেও সে প্রচুর সাহসিকতার সাথে সম্মুখীন হয়েছে জীবনের পথে। স্কুল, কলেজ, ইউনির্ভাসিটি থেকে তাকে তার অবস্থা পিছু হটিয়ে রাখতে পারেনি।

কিন্তু ২০১০ সাল থেকে মাত্রাতিরিক্ত ঔষধ সেবন ও কাজ করছিলো না, অবস্থার অবনতির জন্য তার বাঁ পা অবশেষে কেটে ফেলা হয়। মেন্ডি বলেন `আমি খুব অসহায় অনুভব করি। আমার এই অবস্থা আমার জীবনকে নিয়ন্ত্রণ করছে`।

অবশেষে ২০১২ সালে কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা তার অবস্থা দেখে কৌতুহল পোষণ করেন। মেন্ডির ডি এন এ নিয়ে তারা গবেষণা করেন এবং এই মত প্রকাশ করেন যে তিনি বিরল PIK3CA জিন রোগেই আক্রান্ত।

নতুন ভাবে তাকে ঔষধ সেবন এর পর বর্তমানে তার ডান পায়ের ওজন আগের থেকে প্রায় ৬ গুণ কম।
মেন্ডি বলেন, `আমি এখন কিছুটা হলেও স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারছি। আশা করছি খুব জলদি আমি ভালো হয়ে উঠবো`।