মেইন ম্যেনু

ফতুল্লা টেস্ট

দ্বিতীয় দিন বৃষ্টিতে ভেসে গেল

মুষলধারে বৃষ্টির কারণে ফতুল্লা টেস্টের প্রথমদিনই খেলা হয়নি প্রায় চার ঘণ্টার মতো। দ্বিতীয় দিন ভোর থেকেই বৃষ্টি। মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সারাদেশেই বৃষ্টিপাত চলছে। এ অবস্থায় সারাদিনই ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামের উইকেট কাভারে ঢাকা ছিল।

সুতরাং নির্ধারিত সময় সাড়ে ৯টায় খেলা শুরু করা তো সম্ভবই হয়নি। এমনকি দুপুর পর্যন্তও না। বৃষ্টি থামলেও মাঠ খেলার উপযোগী হয়ে ওঠেনি। দুপুর দেড়টা পর্যন্ত অপেক্ষার পর ২টার দিকে দ্বিতীয় দিনের খেলা বাতিল ঘোষণা করেন ম্যাচ রেফারি অ্যান্ডি পাইক্রফট। ফলে একটি বল মাটিতে না গড়িয়ে শেষ হয়ে গেলো দ্বিতীয় দিনের খেলা। মাঠ খেলার উপযোগী হলে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হবে তৃতীয় দিনের খেলা।

ফতুল্লা টেস্ট ম্যাচের শুরুর দিন থেকে (বুধবার) বৃষ্টি শুরু হয়। বৃষ্টির কারণে প্রথমদিন মাত্র ৫৬ ওভার খেলা হয়। তাই দ্বিতীয় দিনের খেলা পুরোটা হবে কী-না তাও নিয়ে সংশয ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার শুধু ফতুল্লা নয়, পুরো বাংলাদেশে হয়েছে বৃষ্টি। এমনকি বৈরী আবহাওয়ার কারণে আবহাওয়া অফিস থেকে এসেছিল সর্তক-বাণী। পুরো নৌ-রুটে বিপদ সংকেতও দেয়া হয়েছিল। তারপরও সংবাদকর্মীরা সেই কাক-ডাকা সকাল থেকে ফতুল্লায় যাওয়ার জন্য তৈরি হতে শুরু করে।

কিন্তু বৃস্পতিবার ভোর থেকেই বেশ জোরে-শোরে শুরু হয় বৃষ্টি। তারপরও অনেকে এই বৃষ্টি-বাধা উপেক্ষা করেও ফতুল্লা স্টেডিয়ামে এসে জড়ো হতে শুরু করে। কিন্তু মাঠে ঢুকেই সংবাদকর্মী থেকে শুরু করে ধারভাষ্যকাররাও একে অপরের কাছে জানতে চান, আজ (বৃহস্পতিবার) কি খেলা মাঠে গড়াবে!

তবে এদিন সকাল থেকে পিচ কাভার দিয়ে পুরো ফতুল্লার উইকেটটিকে ঢেকে রাখা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত এই পিচ কাভারটি মাত্র মিনিটের চারেকের জন্য সরান বিসিবির প্রধান কিউরেটর গামিনি সিলভা। কিন্তু তারপরও খেলা শুরু করা আর সম্ভবপর হয়নি।

এর আগে সকাল ১১টা ৫০ মিনিট এবং দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে দু-দফা মাঠ পরিদর্শনে নামেন ফতুল্লা টেস্ট ম্যাচের রিজার্ভ আম্পায়ার এনামুল হক মনি ও বিসিবির প্রধান কিউরেটর গামিনী সিলভা। পরে তারা দু’জন মাঠ কর্মীদের পিচ কাভার সরানোর নির্দেশ দেন। কিন্তু মাঠ-কর্মীরা পিচ কাভারটি বেশিক্ষণ আলগা করে রাখতে পারেনি।

এরপর দুই ফিল্ড আম্পায়ার নাইজেল লং ও কুমারা ধর্মসেনা পুরো মাঠটি ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করেন। এসময় তাদের সঙ্গে ছিলেন জিম্বাবুয়ান ম্যাচ রেফারি আন্দ্রে জে বায়ক্রফট। পরে তারা ফতুল্লা টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় দিন বাতিল বলে ঘোষণা করেন।

প্রথমদিনের বৃষ্টিবিঘ্নিত খেলায় ভারত টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৬ ওভারে করেছে ২৩৯ রান। শিখার ধাওয়ান করেছেন সেঞ্চুরি। তিন অংকের কাছাকাছি রয়েছেন মুরালি বিজয়ও। ১৫০ রান নিয়ে অপরাজিত ধাওয়ান এবং বিজয়ের রান ৮৯।