মেইন ম্যেনু

দ. এশিয়ার পার্বত্যাঞ্চলের জন্য ভূমিকম্প সতর্কতা

সম্প্রতি একটি ভূমিকম্প বাংলাদেশ ও ভারতেকে নাড়া দেয়ার পর আরো একটি দুঃসংবাদ আছে এ অঞ্চলের মানুষের জন্য। বড় ধরনের আরো একটি ভূমিকম্প সংঘটিত পারে হিমালয় অঞ্চলে। রিখটার স্কেলে এর মাত্র হতে পারে ৮.২।

বুধবার ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ (এমএইচএ) এ তথ্য জানিয়েছে। তারা সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, এটা গত সোমাবারের ভূমিকম্পের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি তীব্র হবে। নেপালের ভূমিকম্প পরবর্তী ঘটনা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানিয়েছে এমএইচএ।

সম্প্রতি দক্ষিণ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশে বড় ধরনের কয়েকটি ভূমিকম্প সংঘটিত হয়েছে। এর মধ্যে, রিখটার স্কেলে গত সোমবারের ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬.৭। এর আগে গত বছরের মে মাসে নেপালে ৭.৩ এবং ২০১১ সালে সিকিমে ৬.৯ মাত্রার ভূমিকম্প সংঘটিত হয়।

এ থেকে বোঝা যায়, এ অঞ্চলে সামনে আরো কয়েকটি ভূমিকম্প সংঘটিত হতে পারে, যা রিখটার স্কেলে ৮.০ মাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে।

এমএইচএ সতর্ক করে বলেছে, এটা পুরো উত্তর ভারতে বিশেষ করে পার্বত্য অঞ্চলে মারাত্মক ক্ষতির কারণ হবে। ভারতের অরুণাচল রাজ্যের রাজধানী ইটানগরে দেশটির ১১টি পার্বত্য রাজ্যের নীতি নির্ধারকদের নিয়ে এক বৈঠকে রাজ্যগুলোকে সতর্ক করে দিয়েছে তারা।

ভারতের জাতীয় দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউটের (এনআইডিএম) পরিচালক সন্তোষ কুমার বলেন টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেন, নেপাল, ভুটান, মিয়ানমার এবং ভারতের মধ্যে সংযুক্ত ভূমিকম্প সৃষ্টিকারী প্লেটটি এ অঞ্চলে বড় ধরনের বিপদ বয়ে আনতে পারে। এতে বিহার, উত্তর প্রদেশ এমনকি দিল্লিও ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।