মেইন ম্যেনু

ধানমণ্ডির বাণিজ্যিক স্থাপনা অপসারণ হচ্ছেই

ধানমণ্ডির আবাসিক এলাকা থেকে নকশা অনুযায়ী অনুমোদনহীন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান স্থানান্তরে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে করা লিভ টু আপিল খারিজ করে দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এর ফলে সেখান থেকে সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান সরাতে হাইকোর্টের রায় বহাল থাকল। রায়ের ফলে এই এলাকায় নতুন করে কোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান অনুমোদনও দেওয়া যাবে না।

সোমবার (১ আগস্ট) আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি আবদুল ওয়াহহাব মিয়ার নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে দুই আপিলকারী ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (দক্ষিণ) এর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী জয়নাল আবদীন তুহিন ও ম্যাপল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পক্ষে ছিলেন ড. আবুল বাশার। অপরদিকে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

পরে মনজিল মোরসেদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপিল বিভাগের এই আদেশের ফলে ধানমণ্ডির আবাসিক এলাকা থেকে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান সরাতে হাইকোর্টের দেওয়া ৭ দফা নির্দেশনা বহাল থাকল। তবে ধানমণ্ডি ২ ও ২৭, মিরপুর রোড ও ঝিগাতলা সড়কের পার্শ্ববর্তী স্থাপনা বাণিজ্যিক এলাকার মধ্যে পড়বে না।’

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০১১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ধানমণ্ডি ১০/এ কল্যাণ সমিতির সভাপতি এফএম মাসুদ ও সম্পাদক এমএ মতিন জনস্বার্থে আদালতে রিট করেন। এরপর ২০১১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি আদালত রুল জারি করেন।

রুলে ধানমণ্ডি আবাসিক এলাকার বৈশিষ্ট্য রক্ষা করতে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান অপসারণের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। পূর্ত সচিব, পরিবেশ সচিব, রাজউক, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন, ঢাকার জেলা প্রশাসক, গণপূর্ত অধিদফতরের ধানমণ্ডি এলাকার নির্বাহী প্রকৌশলী, রাজউকের ওই এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং ধানমণ্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়।

ওই রুলের শুনানি শেষে ২০১২ সালের ১১ জুন ওই এলাকা থেকে বাণিজ্যিক স্থাপনা অপসারণের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। তবে প্রতিষ্ঠানের মালিকদের নোটিশ দিয়ে আইন অনুযায়ী সময় দিতে হবে বলে নির্দেশে উল্লেখ করা হয়। ওই এলাকায় কোনো ধরনের বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেওয়ার ওপর ৬ মাসের নিষেধাজ্ঞা দেয় আদালত।

রায়ে ধানমণ্ডিতে অবস্থিত ম্যাপল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ১১টি শাখা একত্র করে তাদের নির্দিষ্ট স্থানে তিন বছরের মধ্যে সরাতেও নির্দেশ দেওয়া হয়।

সেই রায়ের বিরুদ্ধে ডিসিসি (দক্ষিণ) ও ম্যাপল লিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল লিভ টু আপিল করেন। সেই দুটি আবেদনের মধ্যে সোমবার (১ আগস্ট) ম্যাপল লিফের আবেদন উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন। আর ডিসিসির আবেদন তামাদির তামাদির সময় অতিক্রান্ত হয় খারিজ করেন আপিল বিভাগ।