মেইন ম্যেনু

ধামইরহাটে বাস, ট্রাক, ভটভুটি ত্রি-মুখি সংঘর্ষে শিশুসহ জখম-৭

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) : নওগাঁর ধামইরহাটে বাস-ট্রাক ও ভুটভুটির ত্রিমুখী সংঘর্ষে শিশুসহ ৭ জন মারাত্বক জখম হয়েছে। তাৎক্ষনিকভাবে জখমীদের চিকিৎসায় দিখা দেয় ডাক্তার সংকট। উপস্থিত জনতা ক্ষোভে ফেটে পড়ে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার পৌরসদরস্থ্য পতœীতলা-জয়পুরহাট আঞ্চলিক মহাসড়কের আমাইতাড়া মোড়ে জয়পুরহাট গামী একটি ট্রাককে সাইড দিতে ধামইরহাটের উদ্দ্যেশ্যে নওগাঁ থেকে ছেড়ে একটি যাত্রীবাহী বাস (যশোর-ব ৮২২) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী একটি ইঞ্জিল চালিত ভুটভুটিকে চাপা দেয়।এতে বাসটি একটি আমগাছের সাথে বেধে গেলে অনেকেই প্রাণে রক্ষা পেলেও শিশূসহ ৭ জন যাত্রী মারাত্বক জখম হয়েছে। জখমীরা হলেন,আলমপুর ইউপির ভগবানপুর গ্রামের রজনীকান্ত (৫৫), রজনীকান্তের ছেলে প্রভাষ (২৬), সুজন (১৮), হরিকীডাঙ্গা গ্রামের ফরিদ উদ্দিন (৬০), মনোপুর গ্রামের দুলাল (৪০), বীরগ্রামের ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমানের ভাই বৌ শিল্পীআরা (৩৫), তার ছেলে সোয়াইব (৭)।

এদের মধ্যে রজনীকান্ত, দুলাল ও ফরিদ উদ্দিনের অবস্থায় আংকজনক। রোগীর স্বজন মাসুদুর রহমানসহ একাধীক স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, জখমীদের হাসপাতালে জরুরী বিভাগে নিলে ডাক্তারকে খুজে পাওয়া যায়নি। পরে আরএমও ডা. করিম এসে পরিস্থিতি মোকাবিলা করেন।

হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য প্রশাসক ডা. মাজেদুর রহমান ঘটনার ২ ঘন্টার পরে ও তাকে হাসপাতালে পাওয়া যায়নি বলে স্বজনরা অভিযোগ করেন। ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে পৌর মেয়র আমিনুর রহমান জখমীদের খোজখবর নেন ও ডাক্তার সংকট থাকায় মেয়র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ঘাতক বাসটি আটক করলেও ড্রাইভারকে পুলিশ আটক করতে পারিনি।