মেইন ম্যেনু

ধামরাইয়ে গৃহবধূর হাতে পশু চিকিৎসক খুন

টিপু সুলতান (রবিন)-সাভার প্রতিনিধি: ধামরাইয়ে প্রতিবেশী গৃহবধূর হাতে যৌন লালসার কারণে খুন হয়েছেন এক গ্রাম্য পশু চিকিৎসক। এ ঘটনায় সাজেদা বেগম নামের ওই গৃহবধূ আটক হওয়ার পর পুলিশের নিকট হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করে জবানবন্দী দিয়েছেন।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে ধামরাইয়ের চৌহাট ইউনিয়নের পূর্ব দিমুখা গ্রামের একটি ধানখেতের পাশ থেকে এই গ্রাম্য চিকিৎসককের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত পশু চিকিৎসক ঠান্ডু মিয়া (২৮) জনৈক মো. জলিলের ছেলে।

এ বিষয়ে ধামরাই থানার ওসি (তদন্ত) এফ এম সাইদ জানায়, স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে একটি ধান খেতের পাশ থেকে ঠান্ডু মিয়া নামে এক গ্রাম্য পশু চিকিৎসকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহৃ রয়েছে। এ ঘটনায় প্রতিবেশী সাজেদা বেগম নামে এক গৃহবধূকে আটক করা হয়েছে। আটক সাজেদা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই হত্যাকান্ডের তার সম্পৃক্ততা কথা স্বীকার করেছে।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরো জানান, গত রাতে কৌশলে ঠান্ডু মিয়াকে তার ঘরে ডেকে নিয়ে খাবারের সঙ্গে চেতনা নাশক ওষুধ দিয়ে অচেতন করেন। তারপর তার গোপনঙ্গসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে তাকে হত্যার পর পাশ্ববর্তী ধানখেতে মরদেহে ফেলে দিয়ে আসেন। এ ঘটনায় সাজেদার ঘর তল্লাসী করে নিহত ঠান্ডু মিয়ার ব্যবহৃত রক্তমালা লুঙ্গি ও জামা কাপড় উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে গোপন সূত্রে জানা গেছে, অনেক দিন থেকেই সাজেদা বেগমকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন নিহত পশু চিকিৎসক ঠান্ডু মিয়া। এঘটনায় প্রচন্ড ক্ষোভের বশবর্তী হয়েই লম্পট ঠান্ডু মিয়াকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলেও জানান তারা।