মেইন ম্যেনু

ধামরাইয়ে দুটি ডাকাতির ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতংক

টিপু সুলতান(রবিন), ধামরাই(ঢাকা): সোমবার রাত আটটার দিকে ধামরাই পৌর এলাকার পাঠানটোলার আব্দুল খালেক নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

ডাকাতরা এসময় নগদ প্রায় নয় লক্ষ টাকা ও বিশ ভরি স্বর্ণ লুট করে নিয়ে যায়। এর আগে গত বুহস্পতিবার ধামরাইয়ের বালীথা এলাকায় রজ্জবানেচ্ছা নামে এক গৃহবধূকে হত্যা করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান জিনিস পত্র লুট করে নিয়ে যায় ডাকাতরা। এক সপ্তাহের মধ্যে দু-দুটি ডাকাতির ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।

সোমবার রাত আটটার দিকে ধামরাইয়ের পাঠানটোলা এলাকায় ব্যাবসায়ী আব্দুল খালেকের পাঁচতলা ভবনের দোতলায় নিজেদের স্থানীয় সাংসদের লোক পরিচয় দিয়ে এক দল ডাকাত বাড়িতে ঢুকে অস্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে ফেলে।

এসময় ডাকাতরা বাড়ির মালিকের কাছ থেকে চাবি নিয়ে আলমারিতে রাখা নগদ নয় লক্ষ টাকা ও প্রায় বিশ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

ব্যবসায়ী খালেকের স্ত্রী জানায়,গতকাল(সোমবার)রাত আটটার সময় একদল লোক স্থানীয় সাংসদের লোক পরিচয় দিয়ে ঘড়ে ঢুকেপড়ে সবাইকে অস্ত্রের মুখে জিম্মিকরে সবাইকে বেধড়ক পিটিয়ে আহতকরে গুলিকরার ভয়দেখিয়ে একটি কক্ষে সবাইকে আটকে রেখে সবকিছু নিয়ে যায়।

এর আগে গত ২৫ আগষ্ট ভোরে ধামরাইয়ের বালিথা এলাকায় ব্যাবসায়ী ফালুজ উদ্দিন ব্যাপারীর বাড়িতে ডাকাতদের হামলায় নিহত হন গৃহকর্তি রজ্জবানন্নেছা।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে দু-দুটি ডাকাতির ঘটনায় আতংকিত এলাকাবাসি।

ধামরাই পৌরসভা এলাকার সেলিম নামের একব্যবসায়ী জানায়, এইতো সেদিন শুনলাম বালিথায় ডাকাতরা ডাকাতি করে একজনকে মেরে রেখে গেছে,আবার গতকাল পাঠান টোলা এলাকায় ডাকাতি হল।পৌরসভার ভেতরে থানার পাশেই ছিল সেই বাড়িটি তারপরও কিভাবে ডাকাতি হল আমরা বুঝিনা,আর পুলিশ প্রশাসন ডাকাত দের ধরতেও পারছেনা এমত অবস্থায় আমরা সকলেই আতঙ্কিত।আমরা চাই যতদ্রুত সম্ভব ডাকাতদের গ্রেপ্তার করা হোক।তাহলে অন্ত একটু সস্তিতে বসবাস করতে পারবো।

এদিকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশকে আরো সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়েছেন ধামরাই পৌরসভার মেয়র গোলাম কবির,তিনি আরও বলেন এইসব ঘটনা এড়াতে খুব শিঘ্রই পৌর এলাকার সকল ওয়ার্ডকে সিসিটিভির আওতায় আনাহবে।