মেইন ম্যেনু

ধূমপান নিয়ে ৫টি ভুল তথ্য

ধূমপান নিয়ে দুনিয়াজুড়ে কথা কম হয়নি। সবচেয়ে সহজ নাকি ধূমপান ছেড়ে দেয়া। অনেকে্ একাধিকবার ধূমপান ছেড়েছেন, তবু আসক্তি ছাড়তে পারেননি। চিকিৎসকদের মতে, ধূমপানের পক্ষে একটিও ভালো যুক্তি নেই।

এতো কথা যখন ধূমপান নিয়ে তখন কুফল আর বিপদ নিয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে ৯ মার্চ জাতীয় ভাবে ‘নো স্মোকিং ডে’ পালন করছে যুক্তরাজ্য। এই দিবস উপলক্ষে আন্তর্জাতিক এক গণমাধ্যমে উঠে এসেছে ধূমপান নিয়ে প্রচলিত কিছু ভুল ধারণার কথাও।

১. মাইল্ড সিগারেটে ঝুঁকি কম: ধূমপানের অভ্যাস ছাড়তে না পেরে অনেকেই কড়া সিগারেট ছেড়ে মাইল্ড(হালকা) সিগারেট ধরেন। ভাবেন এতে ঝুঁকি কম। কিন্তু লাইট বা মাইল্ড শুধুই নামের বাহানা। কম পরিমাণ নিকোটিন টানতে অনেক গভীর শ্বাসের প্রয়োজন হয়। ফলে শরীরের অনেক গভীরে পৌঁছে ক্ষতি করে।

২. যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে: যারা দীর্ঘ দিন ধরে ধূমপান করছেন তারা ভাবেন যা ক্ষতি হওয়ার এত দিন হয়ে গিয়েছে। আর নতুন করে কিছু হওয়ার নেই। এটা অজুহাত ছাড়া কিছুই নয়। প্রতিটা সিগারেটের সঙ্গে ক্ষতির পরিমাণ বাড়ছে। আর সিগারেট ছাড়লে এক বছরের মধ্যে ৫০ শতাংশ কমে যাবে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা।

৩. ধূমপান ছাড়লে ওজন বাড়বে: বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন ধূমপান ছাড়লে ৬.৩৫ কিলোগ্রাম পর্যন্ত ওজন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু সেই কারণে ধূমপান না ছাড়া সম্পূর্ণ অজুহাত।

৪. কম সিগারেট: অনেকে মনে করেন সিগারেট খাওয়া কমালেই চলবে। ছেড়ে দেয়ার প্রয়োজন নেই। এতে কিন্তু ক্ষতি বেশি হয়। কারণ সংখ্যা কমিয়ে দিলে একটা সিগারেট থেকেই অনেক বেশি সুখটান পেতে চায় শরীর। ফলে আগের থেকেও গভীর টানে নিকোটিন শরীরে অনেক গভীরে যায়।

৫. আগে চেষ্টা করেছিলাম: অনেকেই বলেন তার পক্ষে সিগারেট ছাড়া সম্ভব নয়। কারণ আগে চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই দ্বিতীয় বার চেষ্টা করতেই চান না। মনে রাখা দরকার সিগারেটের নেশাও এক দিনে ধরেনি। দীর্ঘ দিনের অভ্যাস, নেশা সহজে ছাড়া যায় না। সময় লাগবে।