মেইন ম্যেনু

ধূমপায়ী সহকর্মী কীভাবে আপনার ক্ষতি করে?

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, প্রতিবছর সারা বিশ্বে প্রায় ৬০ লাখ মানুষ ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাবে মারা যায়। এর মধ্যে ৫০ লাখ লোক সরাসরি ধূমপানের কারণে মৃত্যুবরণ করে। আর প্রায় ছয় লাখ লোক প্রতিবছর প্যাসিভ স্মোকিং বা পরোক্ষ ধূমপানের কারণে মারা যায়।

ধূমপান বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার তৈরি করে, যেমন : ফুসফুস, কণ্ঠস্বর, মুখ, গলা, ব্লাডার, কিডনি, লিভার পাকস্থলী।

আপনি হয়তো ধূমপান করেন না। তবে আপনার সহকর্মী ও বন্ধুরা আপনার সামনেই ধূমপান করেন। বিষয়টি কেবল আপনার সহকর্মী বা বন্ধুটি নয়, আপনার জন্যও ক্ষতিকর, ঝুঁকিপূর্ণ। টাইমস অব ইন্ডিয়ার স্বাস্থ্য বিভাগে প্রকাশিত হয়েছে এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন।

ভারতের ম্যাক্স বালাজি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের কার্ডিয়াক ক্যাথ ল্যাবের সহযোগী পরিচালক ও প্রধান ডা. মনোজ কুমার মেন করেন, যেসব লোক ধূমপান করেন না, তবে ধূমপায়ীদের ভেতর থাকেন, তাঁরাও সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে থাকেন। এ ছাড়া ধূমপান না করলেও ধূমপান হয়, এমন এলাকায় বেশি থাকলেও ক্ষতি হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতামত, সিগারেটের মধ্যে হাজারো রকমের বিষাক্ত পদার্থ থাকে। কেবল পাঁচ মিনিট ধূমপান করার সময় ধূমপায়ীদের সঙ্গে থাকলে বা যেসব এলাকায় ধূমপান বেশি হয়, সেখানে থাকলে শরীরের ক্ষতি হতে শুরু করে। ২০ থেকে ৩০ মিনিট থাকলে রক্ত জমাট বাঁধতে শুরু হতে থাকে। এতে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। সিগারেটের মধ্যে থাকা নিকোটিন উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দেয়।

তাই সিগারেট না খাওয়াই কেবল সমাধান নয়, সিগারেটমুক্ত পরিবেশে থাকাও এসব থেকে বাঁচার উপায় বলে পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।