মেইন ম্যেনু

ধোনির ধাক্কা ইচ্ছাকৃত : ম্যাচ রেফারি

প্রথমে মনে হয়েছিল, ব্যাটসম্যানের দৌড়ানোর পথে দাঁড়ানোর কারণেই ধাক্কা খেয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু পরে টিভি রিপ্লেতেই সব পরিষ্কার হয়ে যায়। ইচ্ছাকৃতভাবেই মুস্তাফিজকে ধাক্কা মারেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। যদিও ম্যাচ রেফারির শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন ভারতীয় অধিনায়ক। তবে ম্যাচ রেফারি অ্যান্ডি পাইক্রফট নিশ্চিত, ধোনির ধাক্কাটা ইচ্ছাকৃতই ছিল।

শুক্রবার ধোনি ও মুস্তাফিজ দুজনকেই শুনানির জন্য ডাকা হয়। শুনানি শেষে দুজনকে জরিমানাও করেছেন গতকালের ম্যাচ রেফারি পাইক্রফট।

শুনানিতে প্রথমে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন মুস্তাফিজ। তবে পরে নিজের দোষ স্বীকার করে নেন বাংলাদেশের এই পেসার। দোষ স্বীকার করায় ও অনভিজ্ঞতা বিবেচনায় তার ম্যাচ ফির ৫০ শতাংশ জরিমানা করেন ম্যাচ রেফারি।

অন্যদিকে ধোনি ধাক্কা মেরেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। ভারতীয় অধিনায়ক জানান, তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে ধাক্কা মারেননি বরং বোলারই ভুল জায়গায় ছিল।

তবে ম্যাচ রেফারি পাইক্রফটের মনে হয়েছে, ধোনি ইচ্ছাকৃতভাবেই মুস্তাফিজকে ধাক্কা মেরেছেন। তাই শাস্তি হিসেবে ধোনির ম্যাচ ফির ৭৫ শতাংশ জরিমানা করেন তিনি।

ম্যাচ রেফারি পাইক্রফট তার বিবৃতিতে বলেন, ‘শুনানিতে ধোনি নিজের পক্ষে যুক্তি দাঁড় করানোর চেষ্টা করেন। তার মনে হয়েছিল, বোলার ভুল জায়গায় ছিল এবং ওই ধাক্কাটা কিছুতেই এড়ানো যেত না। তাই তিনি হাত দিয়ে মুস্তাফিজকে সরিয়ে দিতে চেয়েছেন, যেন ধাক্কাটা কম লাগে।’

পাইক্রফট আরো বলেন, ‘যদিও অন্য প্রান্ত থেকে দৌড় শুরু করা ব্যাটসম্যান (রায়না) আর বোলারের মাঝখানে জায়গাটা খুব কম ছিল। তবে অভিজ্ঞ ধোনির ধাক্কাটা এড়ানোর চেষ্টা করা উচিত ছিল। কারণ ক্রিকেট এমন এক খেলা, যেখানে শরীরী সংযোগের সুযোগ নেই। খেলোয়াড়দের সব সময় শারীরিক সংযোগ এড়িয়ে চলাটাই প্রত্যাশিত। এ কারণে ধোনির ম্যাচ ফির ৭৫ শতাংশ জরিমানা করেছি।’

মুস্তাফিজুরের ব্যাপারে পাইক্রফট বলেন, ‘মুস্তাফিজের ৫০ শতাংশ জরিমানা করেছি। কারণ সে স্বীকার করেছে এভাবে ব্যাটসম্যানের পথে দাঁড়ানো তার ঠিক হয়নি। শারীরিক সংযোগ এড়াতে তার আরো বেশি সচেষ্ট হওয়া উচিত ছিল।’

এদিকে ধোনির ধাক্কার ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘গতকাল রাতে ধোনি যা করেছেন, তা আমাদের পছন্দ হয়নি। তার কাছে এমনটা প্রত্যাশিত ছিল না।’