মেইন ম্যেনু

বড় ধরনের সংঘর্ষের আশংকা

নওগাঁয় দীঘিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ: ককটেল ও দেশীয় অস্ত্র সহ আটক ৫

বুলবুল চৌধুরী, নওগাঁ থেকে: নওগাঁর পত্মীতলায় উপজেলার কাঞ্চন মাজার দীঘি দখল ও মাছ মারাকে কেন্দ্র করে গতকয়েক দিন ধরে কাঞ্চন মাজার এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের এক পর্যায়ে সোমবার পত্মীতলা থানা পুলিশ ককটেল, দেশীয় অস্ত্র, লাঠিসোটা সহ ৫জনকে আটক করেছে। এলাকায় বর্তমানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। উক্ত দীঘি দখল নিয়ে আবারও বড় ধরনের সংঘর্ষের আশংকায় এলাকাাসী আতংকিত।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার কাঞ্চন মাজার দীঘিটি পীরত্ব/ ওয়াকফ স্টেট এর আওতায় হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন সেটি লীজ দিয়ে থাকে। এমনি অবস্থায় জনৈক আজাদ রহমান কে সরকারী ভাবে ওয়াকফ স্টেটের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ৩বছরের জন্য লীজ দিলে একটি মহল ১৯৭২ সালের রেকর্ড অনুযায়ী উক্ত দীঘিটির মালিকানা দাবী করে দখল নিয়ে মাছ মারার চেষ্টা করছে। উক্ত দীঘিকে কেন্দ্র করে বিজ্ঞ আদালতে মামলাও চলছে বলেও জানাগেছে।

মাজার দীঘি দখল ও মাছ মারাকে কেন্দ্র করে গতকয়েক দিন ধরে কাঞ্চন মাজার এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার দুপুর আনুঃ ১টায় একটি ইজিবাইক নিয়ে বেশকয়েকজন জন যুবক কাঞ্চন মাজার দীঘি দখল ও মাছ মারতে গেলে ওয়াকফ স্টেটের কমিটির লোকজন সহ স্থানীয়দের সন্দেহ হলে ৫জনকে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ্দ করে। এসময় পুলিশ ঐ ইজিবাইক ও যুবকদেরকে তল্লাশী করে ১০টি ককটেল, দুটি ছুরি ও কিছু লাঠিসোটা উদ্ধার করলেও তাদের সাথে থাকা অন্যান্যরা পালিয়ে যায়।

আটককৃতরা হলো উপজেলা সদর নজিপুর হরিরামপুর গ্রামের নজিবর রহমানের পুত্র মাহবুব আলম (২২), নাদৌড় গ্রামের আব্দুল করিমের পুত্র মেহেদী হাসান (১৯), বহবলপুর গ্রামের উদয় চন্দ্রের পুত্র উৎপল (১৮), নান্দাস গ্রামের মোতারব মন্ডলের পুত্র সুমন হোসেন (১৮) এবং ধামইরহাট রামপুরা গ্রামের লুৎফর রহমানের পুত্র খালিদ হাসান (১৮)।

পুলিশ জানায় কাঞ্চন মাজার দীঘিকে ঘিরে যে কোন্দল চলছিল তারই জের ধরে আটককৃতরা ঐদিন সেখানে মারামারির জন্য যায় বলে অভিযোগে পাওয়াগেছে।

এবিষয়ে ওয়াকফ ষ্টেটের সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল মালেকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান উক্ত কাঞ্চন মাজার ও দীঘি ওয়াকফ স্টেট এর আওতায় হওয়ায় ইতি পূর্বেও লীজ দেয়া ছিল। পূর্বের লীজের মেয়াদ শেষ হওয়ায় ২০১৫ অর্থ বছরে নতুন করে জনৈক আজাদ রহমান নামে এক ব্যক্তিকে ৩বছরের জন্য লীজ দেয়া হয়েছে। উক্ত দীঘিতে মাছ চাষ চলছে। কিন্তু একটি মহল ১৯৭২ সালের রেকর্ড অনুযায়ী উক্ত দীঘিটির মালিকানা দাবী করে দখল নেয়ার চেষ্টা করছে।

উক্ত দীঘি নিয়ে এর আগেও দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে বলেও এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানাগেছে। এব্যাপারে ওয়াকফ স্টেট এর পক্ষে আব্দুল লতিফ চৌধুরী বাদী হয়ে পত্মীতলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং ২৮, তাং-২২/০২/২০১৬। এলাকায় বর্তমানে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। উক্ত দীঘি দখল নিয়ে আবারও বড় ধরনের সংঘর্ষের আশংকায় এলাকাাসী আতংকিত।