মেইন ম্যেনু

নওগাঁয় বিএনপি প্রার্থীদের প্রচারনায় বাধাগ্রস্থ অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

নওগাঁ পৌরসভা নির্বাচন প্রকৃতপক্ষে সুষ্ঠুভাবে হবে কিনা এই আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিএনপি। আওয়ামীলীগ প্রার্থীর সমর্থক এবং প্রশাসন দু’দিক থেকেই বিএনপি প্রার্থীর প্রচারনার ক্ষেত্রে বাধাগ্রস্থ হতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টায় বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে জেলা বিএনপি’র আহবায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক নান্নু এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন আজ একদিনে নওগাঁয় প্রায় ২০ জনেরও বেশী বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা নেই বা কোন অভিযোগ নেই।

বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়ীতে গিয়ে তাদেরকে না পেয়ে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করছে। বিএনপি’র নেতাকর্মীরা যাতে নির্বাচনের মাঠে থাকতে না পারে তারই আতঙ্ক সৃষ্টির লক্ষেই এমনটি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে জেলা রিটার্নিং অফিসার, জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকেও জানালে তারা আশস্ত করলেও কোন কাজ করে নাই। বরং তাদের আচরনে আমরা কষ্ট পেয়েছি। আর এই সুযোগে নির্বাচনে কারচুপির মাধ্যমে সরকার দলের প্রার্থীকে নির্বাচিত করাই এর মুল লক্ষ্য বলে বিএনপি মনে করেন।

তবে তাঁরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষন করছে। তারা আরও বলেন, সরকার দলীয় এমপিরা নির্বাচনের আচরন বিধি লংঘন করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাইছেন এবং প্রার্থীর পক্ষে কাজ চালাচ্ছে। রাতে তারা মোটর সাইকেলের শোডাউন দিচ্ছে। অথচ তাদের কিছুই বলছে না। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি আরও বলেন, নওগাঁর মানুষ শান্তিপ্রিয় মানুষ। তারা শান্তিপ্রিয় নির্বাচন চায়। নির্বাচনের মাধ্যমে জনগন যে সিদ্ধান্ত দিবে তা মাথা পেতে মেনে নিতে চাই।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক লেঃ কর্নেল (অবঃ) আব্দুল লতিফ খান, সাবেক এমপি সামসুল আলম প্রামানিক, সাবেক এমপি ডাঃ সালেক চৌধুরী, আত্রাই রানীনগর এলাকার এমপি প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বুলু, নওগাঁ শহর বিএনপি’র আহবায়ক নাসির উদ্দিন আহমেদ, আত্রাই থানা বিএনপির সভাপতি শেখ রেজাউল ইসলাম, জেলা তাঁতী দলের সাধারন সম্পাদক শেখ আব্দুস শুকুর, জেলা যুবদলের আহবায়ক বায়েজিদ হোসেন পলাশসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।