মেইন ম্যেনু

নকলের অভিযোগে যা বললেন চন্দন (ভিডিও)

এ সময়ের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ইমরান। তার গাওয়া ‘ফিরে আসো না’ শিরোনামের গানের একটি মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছেন নির্মাতা চন্দন রায়। সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে এই মিউজিক ভিডিওটি। প্রকাশের পরই এই ভিডিওর বিরুদ্ধে নকলের অভিযোগ উঠে। তারপর সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক থেকে শুরু করে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।

প্রকাশিত এই মিউজিক ভিডিওটি রাশিয়ান শিল্পী এলভিরা টি’র জনপ্রিয় গান ‘ভিসিও রেশেনো’র (Все решено, ইংরেজিতে All Agreed) ভিডিও নকল করা হয়েছে। দুটি ভিডিও দেখলে পরস্পরের মধ্যে যথেষ্ট মিল পাওয়া যায়। এলভিরার এই গানটি ২০১১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে। তাই খুব স্বাভাবিকভাবে চন্দনের নির্মিত মিউজিক ভিডিওটির মাথায় নকলের তকমা লেগেছে।

Untitled-11462023955

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হয় মিউজিক ভিডিওটির নির্মাতা চন্দনের সঙ্গে। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এই মিউজিক ভিডিওটি রাশিয়ান শিল্পী এলভিরা টি’র জনপ্রিয় গান ভিসিও রেশোনোর মিউজিক ভিডিও থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করেছি।এই ল্যাটিন ভাষার গানের কথা আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষ বুঝবে না। আর পশ্চিমা কালচার তো আমাদের না। আমি চেয়েছি ওই গান থেকে গল্পের ধারণা নিয়ে আমাদের গানের সঙ্গে মিলিয়ে আমাদের মতো করে উপস্থাপন করতে। তবে অনেক বড় কিছু করার উদ্দেশ্যে আমি এই কাজটি করিনি। জাস্ট এতটুকুই।’

তিনি আরো বলেন, ‘পৃথিবীতে মানুষ পরম্পরার মধ্যে দিয়ে বেঁচে আছে। প্রাচীনকালের গুহাচিত্র নিয়ে এখনো কিন্তু চলচ্চিত্র নির্মিত হচ্ছে। ভারতের অধিকাংশ ছবি নকল করে তৈরি হচ্ছে। তাতে কিন্তু ওদের এতটা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় না। আর প্রত্যেকটি কাজের ভালো-মন্দ দুটি দিকই থাকে। তবে আমাদের দেশে নেতিবাচক চর্চাটা বেশি হয়। খেয়াল করে দেখবেন, ভালো কাজের প্রশংসার চেয়ে মন্দ কাজের সমালোচনাটা বেশি হয়। আসলে এমন নেতিবাচক ভাবনাটা খুব হাস্যকর।’

‘ফিরে আসো না’ শিরোনামের গানটি লিখেছেন স্নেহাশিষ। গানটির সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন ইমরান। মিউজিক ভিডিওতে মডেল হিসেবে অভিনয় করেছেন পিয়া বিপাশা ও ইমরান। গানটি ইউটিউবে প্রকাশের পর প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দেখা হয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার বারের বেশি।

দেখুন : এলভিরা টি’র ‘ভিসিও রেশেনো’ গানটি

দেখুন : ইমরানের গাওয়া ‘ফিরে আসো না’ গানটি