মেইন ম্যেনু

নতুন আবিস্কার: বিনামূল্যে ভিডিও কলিং করতে পারবেন এই অ্যাপে

এই মাসেই গুগল নিয়ে এসেছে দু’টি অ্যাপ, ‘ডুয়ো’ এবং ‘অ্যালো’। দ্বিতীয় অ্যাপটি ভারতে না এলেও, ‘ডুয়ো’ কিন্তু ডাউনলোড করতে পারেন ভারতীয়রা প্লেস্টোর থেকে।

এই অ্যাপ থেকেই করতে পারেন ভিডিও কল। যাকে কল করছেন সে যদি অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহার না-ও করে তাও কলিং করা যাবে। ফোনে স্কাইপি-র মাধ্যমে ভিডিও কলিং করার চেয়ে অনেক বেশি সুবিধাজনক এই ‘ডুয়ো’-তে ভিডিও কলিং।

এই অ্যাপটি ইনস্টল করতে গেলে প্রথমে লিখতে হবে দেশের নাম ও ফোন নম্বর। এর পর মোবাইলে আসবে ভেরিফিকেশন কোড। ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে শুরু করতে পারবেন ভিডিও কলিং।

নীচে রইল এই অ্যাপের আটটি ফিচার—

১. ‘ডুয়ো’-তে রয়েছে একটি ফিচার— ‘নক নক’। কেউ যদি এই অ্যাপ মারফত আপনাকে কল করে, তবে কে কল করছে তার প্রিভিউ দেখাবে এই নক নক ফিচার।

২. ‘ডুয়ো’ অ্যাপটি না খুলেও অ্যানড্রয়েড ইউজাররা ‘নক নক’ ফিচারটি দেখতে পাবেন কিন্তু আইওএস ইউজারদের ক্ষেত্রে এই সুযোগ নেই। ৩. ফোনের কনট্যাক্ট লিস্টে যাঁরা থাকবেন, শুধুমাত্র তাঁদের কলই ‘নক নক’-এর মাধ্যমে রিসিভ করা যাবে।

৪. এই অ্যাপের মাধ্যমে প্রয়োজন পড়লে কাউকে ব্লকও করা যায় যাতে সে আর ফোন করতে না পারে। সবচেয়ে মজার কথা, যে ব্লকড হবে সে বিষয়টি জানতেও পারবে না।

৫. ইচ্ছে করলে ডিজএবল করেও রাখা যাবে ডুয়ো তবে সেটা কোনও একটি বা দু’টি বিশেষ কনট্যাক্টের ক্ষেত্রে করা সম্ভব নয়। ডিজএবল হলে অ্যাপের মাধ্যমে আর ভিডিও কলিং হবে না।

৬. ডুয়োর সবচেয়ে বড় বিশেষত্ব হল, এখানে এইচডি রেজলিউশনে ভিডিও কলিং সম্ভব। তবে কোম্পানির বক্তব্য, নেটওয়র্ক ভাল না থাকলে হয়তো ভিডিওর কোয়ালিটি ভাল না-ও হতে পারে।

৭. প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটির বিষয়টি মাথায় রেখে এই অ্যাপে থাকছে এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন।

৮. গুগল-এর দাবি এই অ্যাপটি এমনভাবেই তৈরি যে নেটওয়র্ক ডাউন থাকলেও চলবে ‘ডুয়ো’।