মেইন ম্যেনু

নতুন করে সাতক্ষীরাসহ আরো ৮টি জেলায় চলবে রেল

যাত্রীসেবা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ রেলওয়েকে আধুনিকায়নের উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান সরকার। তাই নতুন করে আরো ৮টি জেলা রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হচ্ছে। বর্তমানে ৪৪টি জেলায় রেল লাইন রয়েছে। নতুন জেলাগুলো হলো- সাতক্ষীরা, মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, মেহেরপুর, বরিশাল, কক্সবাজার ও নড়াইল। রেলপথের ভ্রমণ বাংলাদেশে সবচেয়ে নিরাপদ ও আরামদায়ক হওয়ায় নতুন এই পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, আগামী ২০২০ সালের মধ্যে ওই প্রকল্পগুলোর কাজ পর্যায়ক্রমে শেষ হবে।

এরপর পর্যায়ক্রমে আরো ৬টি জেলা রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হবে। সেগুলো হল- শেরপুর, রাঙ্গামাটি, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, পটুয়াখালী ও বরগুনা।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, ২০০৯ সালে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর নতুন রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করে। এরপর প্রায় ২০০ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়। এসব রেলপথ দিয়ে পুরোদমে ট্রেন চলাচল করছে।

২০০৯ সালের জুন থেকে ২০১৪ সালের জুন পর্যন্ত নির্মাণ করা হয় ১১২ কিলোমিটার নতুন রেলপথ। এ রেলপথগুলো হলো- তারাকান্দি থেকে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার, সিগন্যালিংসহ টঙ্গী থেকে ভৈরববাজার পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার, লাকসাম থেকে চিনকি আস্তানা পর্যন্ত ৪৫ কিলোমিটার এবং ফরিদপুর থেকে পাঁটুরিয়া পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার।

২০১৪ সালের জুন থেকে চলতি বছরের জুন পর্যন্ত আরও ৯০ কিলোমিটার নতুন রেলপথ নির্মাণ করা হয়। এছাড়া, ২০৭ কিলোমিটার রেলপথ মিটারগেজ থেকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর করা হয়। এ ২০৭ কিলোমিটার রেলপথ হলো- ঢাকা থেকে জয়দেবপুর ৮৫ কিলোমিটার, দিনাজপুর থেকে পঞ্চগড় ১৬ কিলোমিটার, পার্বতীপুর থেকে কাঞ্চন-পঞ্চগড় এবং কাঞ্চন-বিরল পর্যন্ত ১০৬ কিলোমিটার।

এছাড়া, ৭৬৫ কিলোমিটার রেলপথ পুনঃসংস্কার করা হয়। ৬৫টি নতুন ব্রিজ নির্মাণ করা হয় এবং ৩৫৪টি পুনঃনির্মাণ করা হয়।