মেইন ম্যেনু

নতুন বছরে নতুন করে দল গোছাতে চায় আওয়ামী লীগ

নতুন বছর নতুন করে দল গোছাতে চায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তৃণমূলে কোন্দল মিটিয়ে দলকে আগামী নির্বাচনের জন্য গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়েছেন দলের শীর্ষ নেতারা। নতুন বছর নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান কীভাবে শুরু করা যায় সেটা নিয়েও ভাবছেন তারা।

এছাড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় শৃঙ্খলা ভেঙে যারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেছে তাদের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিতে চায় দলটি। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

আগামীকাল (বুধবার) আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম ওয়ার্কিং কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভায় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদেরও উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। সন্ধ্যা ৬টায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে।

আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দলের কার্যনির্বাহী কমিটির নিয়মিত সভা হলেও বুধবারের সভা বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে।

তারা জানান, নতুন বছরের প্রথম সভায় নতুন পরিকল্পনার বিষয় রয়েছে। নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি আগামীতে কীভাবে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করবে সে বিষয়ে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা দেবেন। বিশেষ করে ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল পর্যায়ে দল গোছানোর বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দেয়া হবে।

এছাড়া বর্তমান সরকারের তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে সরকারের সাফল্য সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার বিষয়েও নির্দেশনা দেয়া হবে। সংশ্লিষ্টরা জানান, সংসদ সদস্য লিটন হত্যাসহ দেশের আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ও আলোচনায় স্থান পাবে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় ৫ ও ১০ জানুয়ারির কর্মসূচি সফল করার বিষয়ে আলোচনা হবে। এছাড়া সাংগঠনিক বিষয়েও বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টি দলে আলোচনা হতে পারে।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, নতুন বছরে দল গোছানো এবং তৃণমূল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী করার বিষয়ে আলোচনা হবে।

এছাড়া গত কয়েক বছরে তৃণমূলে যেসব সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেগুলোর নেতাদের সর্বশেষ অবস্থান, নতুন বছরে সদস্য সংগ্রহ অভিযান, জেলা পরিষদ নির্বাচন ও মূল্যায়নসহ সাংগঠনিক বিষয়েও আলোচনা হবে সভায়।