মেইন ম্যেনু

নবীন শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত জাবি ক্যাম্পাস

শাহাদাত হোসাইন স্বাধীন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে: নতুন বর্ষের শিক্ষার্থীদের আাগমনে ভরে উঠেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৫ তম আবর্তনের ২০১৫-২০১৬ স্নাতক (সম্মান) শিক্ষাবর্ষের ব্যাচ ক্লাশ শুরু হয়েছে। ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মাঝে ৩৪ টি বিভাগ ও ২ টি ইনস্টিউটের অধীনে মেধাক্রমে প্রায় ২০০০ শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার আবু বকর সিদ্দিক। তবে আরও কিছু শিক্ষার্থীদের কোটার মাধ্যমে ভর্তি প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান। সবুজ গাছের চাদরে মোড়ানো পর্যটনের বৈশিষ্ট্য নিয়ে ৭০০ একরের বিশাল ক্যাম্পাস। শিক্ষকদের জ্ঞানগর্ভ উপদেশ আর সিনিয়রদের সহযোগিতা। সবমিলিয়ে দারুণভাবে পথচলা। অন্যদিকে নতুন শিক্ষার্থীদের যাতে র্যাগ দেওয়া না হয় সেদিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আাধার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসে প্রতিদিন বাইরে থেকে লোক আসে অবসর সময় কাটানোর জন্য। নবীনদের পদচারণে আরো মুখরিত হয়েছে জাবি ক্যাম্পাস। ক্যাম্পাসের টারজান পয়েন্ট,বটতলা,ট্রান্সপোর্ট, মুন্নি চত্বর,শহীদ মিনার সর্বত্র নবীনদের জয়জয়কার। প্রতি বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বত্র তাদের সরব উপস্হিতি বুঝা যায়। উদ্ভিদের সমাহার নিয়ে সৌন্দর্যের লীলাভূমি বিশ্ববিদ্যালয় বোটানিক্যাল গার্ডেন। বর্তমানে গার্ডেনটি ও যেন নতুনভাবে সেজেছে। নৃবিজ্ঞানের নবীন শিক্ষার্থী রুকনুজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের নতুন অভিজ্ঞতার কথা ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন,স্বপ্ন ছিল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ব,সে স্বপ্ন আজ সার্থক হল। ক্যাম্পাস সম্পর্কে তিনি বলেন ক্যাম্পাসের পরিবেশ খুবই মনোরম যা আমাকে মুগ্ধ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশশাররফ হোসেন হলের নতুন আবাসিক শিক্ষার্থী অমিত কুমার সাহা বলেন শুরুতে পরিবারকে ছেড়ে থাকতে কষ্ট হলেও নতুন বন্ধুবান্ধব পেয়ে এখন ভালোি দিন কাটছে।।পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের ৪৪ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী হাসান মাহমুদ ফরিদ নতুন শিক্ষার্থীদের শুভ কামনা জানিয়েছেন। তিনি বলেন নতুনদের জন্য সেশনজট,সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যমুক্ত একটি ক্যাম্পাস উপহার দিতে পারলে তাদের ক্যাম্পাস জীবন সুখী-সমৃদ্ধ হবে। নতুন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনৈতিক,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো নানা কর্মসূচি সাজাতে ব্যস্ত। সংগঠনগুলো তাদের অবস্হান ও কর্মসূচি জানান দিতে নবীন শিক্ষার্থীদের কাছে যাচ্ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের জেলা সমিতিগুলো ও নবীন শিক্ষার্থীদের জন্য গেট টুগেদার,পিকনিকসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করছে।তৈরী হচ্ছে সিনিয়র জুনিয়রদের।মধ্যে।সম্পর্কের সেতুবন্ধন। এভাবে সম্পর্কগুলো তৈরী হয় জাহাঙ্গীরনগরে। ধীরে ধীরে ক্যাম্পাসের সবাই হয়ে উঠে এক পরিবারের সন্তান। আর পরিবারে নতুন অতিথিদের আগমনে একটু উৎসব তো থাকবেই। প্রিয় জাহাঙ্গীরনগরের নতুন অতিথিদের পথ চলা শুভ হউক।