মেইন ম্যেনু

নরম কোমল সুন্দর হাত পেতে চান? তাহলে করুন এই ছোট্ট কাজগুলো

শুধুমাত্র মুখের সৌন্দর্যই নয় পুরো দেহের সৌন্দর্য অনেকাংশেই আকর্ষণীয় হয়ে উঠে, বিশেষ করে হাতের সৌন্দর্য। কিন্তু অনেকেই মুখের সৌন্দর্যের কথা ভেবে হাতের সৌন্দর্যের কথা একেবারেই ভুলে যান। যে কারণে হাত ও মুখের ত্বকের রঙ থাকে ভিন্ন যা অনেক বিশ্রী দেখায়। এছাড়াও হাতের যত্ন না হলে তাদের ত্বক রুক্ষ ও কালচে হয়ে পড়ে এবং নখের ভঙ্গুরতাও বৃদ্ধি পায়। এইসকল সমস্যা দূর করতে চাইলে মেনে চলুন ছোট্ট কিছু টিপস যা আপনার হাতের সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলবে খুব সহজে।

১) হাতের জন্য স্ক্রাব

খুবই সাধারণ কিন্তু কার্যকরী একটি স্ক্রাব ঘরে তৈরি করে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন হাতে। চিনি ও লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে চিনি আধগলা করে হাতের ত্বকে ভালো করে ঘষে নিন ৩-৫ মিনিট। এরপর কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এটি হাতের চামড়ার মরা কোষ দূর করতে বিশেষ ভাবে কার্যকরী এবং লেবুর রসের ব্লিচিং ইফেক্ট কালচে ভাব ও রোদেপোড়া দাগ দূর করবে। প্রয়োজনে প্রতিদিনই এই স্ক্রাবটি ব্যবহার করতে পারেন হাতে।

২) নখের যত্ন

হাতে সৌন্দর্য অনেকাংশেই নির্ভর করে নখের উপরে। নখের ভঙ্গুরতা এবং হলদেটে ভাব দূর করে নখের উজ্জলতা ফিরিয়ে আনুন এবং বৃদ্ধি করুন হাতের সৌন্দর্যও। অলিভ অয়েল কুসুম গরম করে নিয়ে নখে ভালো করে ম্যাসেজ করে নিন। এতে নখের ভঙ্গুরতা অনেকাংশে বন্ধ হবে। এবং লেবুর রস নখে ম্যাসেজ করে নিলে নখের হলদেটে ভাবও দূর হয়ে যাবে। সপ্তাহে অন্তত ২ বার এই কাজগুলো করুন।

৩) হাতের চামড়ার ঢিলেঢালা ভাব দূর করুন

অনেক সময় অল্প বয়সেই হাতের চামড়ার টানটান ভাব নষ্ট হয়ে যায় অর্থাৎ ইলাস্টিসিটি নষ্ট হয়ে চামড়া ঢিলে হয়ে যায়। এই সমস্যা সমাধান করুন শুধুমাত্র অ্যালোভেরার মাধ্যমে। অ্যালোভেরার পাতা কেটে তাজা জেল বের করে নিয়ে সপ্তাহে অন্তত ৩ বার পুরো হাতে ভালো করে ম্যাসেজ করে নিন। এরপর হাত ধুয়ে ফেলুন। অ্যালোভেরার অ্যান্টি এইজিং উপাদান ত্বক ঢিলে যাওয়ার সমস্যা দূর করে হাতের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করবে।

সূত্রঃ দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া