মেইন ম্যেনু

নষ্ট হয়ে যাওয়া চুলকে ঘন ও কালো করে তোলার সম্পূর্ণ নতুন একটি পদ্ধতি!

চুল মেয়েদের সোন্দর্যের অন্যতম অংশ। লম্বা, কালো, ঘন চুল কে না পছন্দ করে! কিন্তু আবহাওয়ার বৈরতা আর আমাদের অবহেলার কারণে চুলের সৌন্দর্য কমে যায় ধীরে ধীরে । চুল ঝরে পড়া বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি নতুন চুল গজানোও কমে যায় দিন দিন। আবার রোদের তাপে চুল লালটে হয়ে যায়। এই নষ্ট চুলকে ঘন কালো করার জন্য কত কিছু ই না করে থাকি আমরা। কিন্তু জানেন কি, একটি দারুণ সহজ উপায়ে পেতে পারেন ঘন কালো চুল।না, ক্যাস্টর অয়েল নয়। আজ আমরা জানব অন্যরকম কিছু উপাদানের ব্যবহারে উপায়ে চুল ঘন করার কৌশল। হলফ করে বলা যায়, এই উপায়টির কথা আপনি আগে কখনোই শোনেন নি। আসুন জেনে নেই চুল ঘন কালো করার জাদুকরী সেই উপায়টি।

যা যা লাগবে

• ২ টেবিল চামচ ইউক্যালিপটাস তেল

• ২ টেবিল চামচ লবঙ্গ এর তেল

• ১০ টেবিল চামচ খাঁটি নারকেল তেল

যা করবেন

ইউক্যালিপটাস তেল, লবঙ্গ এর তেল, খাঁটি নারকেল তেল মিশিয়ে একটি তেল তৈরি করুন। আপনি তেলটি একটি বোতলে সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন।

• তেলটি মাথায় খুব ভাল করে ম্যাসেজ করুন।

• ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। সবচেয়ে ভাল হয় সারারাত মাথায় তেল রেখে দেওয়া।

• এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনার ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

• ভাল ফল পেতে সপ্তাহে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করুন।

কীভাবে কাজ করে?

ইউক্যালিপটাস তেল এবং লবঙ্গ এর তেল মাথার তালুর রক্ত চলাচল সক্রিয় করে চুলের গোঁড়া মজবুত করে থাকে। চুলকে ঘন করার পাশাপাশি চুল পড়া রোধ করে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে থাকে।

অনেকসময় ইউক্যালিপটাস তেল এবং লবঙ্গ তেল ব্যবহারে আপনার ত্বকে জ্বালাপোড়ার অনুভূতি হতে পারে। সেক্ষেত্রে সমপরিমাণ ইউক্যালিপটাস তেল এবং লবঙ্গ এর তেলের সাথে ১৫ গুন বেশী পরিমাণে নারকেল তেল মিশিয়ে নিতে হবে।

কোথায় পাবেন?

ইউক্যালিপটাস তেল আমাদের আশেপাশের দোকানে পাওয়া যাবে না। এটি পাওয়ার জন্য যে কোন বড় বিদেশি সুপারশোপ গুলোতে খোঁজ করে দেখতে পারেন। সম্ভব হলে বিদেশ থেকে আনিয়ে নিতে পারেন এই তেলটি।

লবঙ্গের তেল আপনি ঘরেই তৈরি করতে পারেন। কয়েকটি লবঙ্গ নিয়ে গুঁড়ো করে নিন। ১ টেবিল চামচ লবঙ্গের গুঁড়ার সাথে ১/২ কাপ অলিভ ওয়েল মিশিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। তেল ঘন হয়ে আসলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে ব্যবহার করুন।

রেফারেন্সঃ
faster and thicker hair growth using secrets from india- beautytips4her.com
ফটো রেফারেন্স- naturalology.wordpress.com