মেইন ম্যেনু

নাড়ির টানে ঢাকা ছাড়ছে ঘরমুখো মানুষ

মুসলমানদের সব থেকে বড় উৎসব হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। আর তাই ঈদের আনন্দ আপনজনকে নিয়ে উপভোগ করতে নাড়ির টানে ঢাকা ছাড়তে শুরু করেছেন বহু মানুষ।

রোজা ২৯টি হলে ঈদের বাকি এখনো পাঁচ দিন। কিন্তু সরকারি চাকরিজীবীদের ছুটি শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে। অর্থাৎ বৃহস্পতিবার তারা অফিস করে বাড়ির উদ্দেশে যাত্রা করেছে। অনেকে সকালেই অফিসে হাজিরা দিয়ে রওনা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর ব্যস্ততম বাস টার্মিনাল গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদে যাত্রীদের ভিড় লক্ষ করা গেছে। সকাল থেকেই গাবতলী বাস টার্মিনালে ভিড় জমিয়েছেন এই সকল যাত্রীরা। যাদের আগেই টিকিট কাটা ছিল তারা স্বাচ্ছন্দ্যে বাড়িতে চলে যাচ্ছেন।

সরকারি চাকরিজীবী ছাড়া যারা প্রাইভেট কোম্পানিতে কাজ করেন তারা ঝামেলা এড়াতে তাদের পরিবারের সদস্যদের আগেই বাড়িতে পাঠিয়ে দিচ্ছেন। এ ছাড়া রাজধানীতে লেখাপড়া করতে আসা ছাত্রছাত্রীরা ঈদ করতে আগেই গ্রামের বাড়িতে ফিরে যাচ্ছেন। শেষ দিকে রাস্তায় যানজটের আশঙ্কা, অতিরিক্ত যাত্রীর ভিড় আর প্রাকৃতিক দুর্যোগের কথা ভেবে নাড়ির টানে ঘরে ফিরতে শুরু করেছে মানুষ।

সরকারি চাকরি করেন মোহাম্মদ হান্নান হোসেন। তিনি যাচ্ছেন বরিশালের স্বরূপকাঠিতে। তিনি বলেন, ‘আজ অফিস করে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছি। বাসের টিকিট আগেই কেটে রেখেছিলাম।’

তিনি আরো বলেন, ‘এবারের ঈদে বেশ লম্বা একটা ছুটি পেয়েছি। তাই চিন্তা করেছি এবারের এই ছুটিতে আত্মীয়স্বজনদের নিয়ে খুব আনন্দ করে ঈদ উৎযাপন করব।’

কথা হয় টেকনিক্যালে সাকুরা পরিবহন কাউন্টারের ম্যানেজার মাইনুল ইসলামের সঙ্গে। তিনি বলেন, সকাল থেকেই যাত্রীদের চাপ আছে। সরকারি চাকরিজীবীদের নয় দিন বন্ধের কারণে আজ সবাই ঢাকা ছাড়ছে। আজ সকালের থেকে বিকেল এবং রাতে যাত্রীদের প্রচণ্ড চাপ হবে। মূলত আজকেই সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছে।