মেইন ম্যেনু

নাপিত ডেকে ছাত্রের চুল ছাটাই

ভারতের মুম্বাই শহরের দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি স্কুলে জোর করে ১৬ বছর বয়সী এক ছাত্রের চুল কেঁটে দিয়েছে স্কুলের শিক্ষক। এমনটাই দাবী করেছে ওই ছাত্রের বাবা-মা। স্কুল চলাকীন স্কুলের ভেতরেই সেপ্টেম্বরের ২৪ তারিখে ওই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন তারা।

শিশু অধিকার রক্ষায় মহারাষ্ট্রের স্টেট কমিশনে এ বিষয়ে গতকাল একটি অভিযোগ দায়ের করেছে শিশুটির অভিভাবক। তারা জানিয়েছেন, পেদ্দার রোডে অবস্থিতি এ্যাক্টিভিটি হাই স্কুলের ছাত্র তাদের ছেলে। জোর করে তাকে ক্লাস থেকে বের করে দেওয়া হয়। এরপর এক নাপিতকে ডেকে তার চুল কেটে দেওয়া হয়। শুধু তাই নয় তার সহপাঠীদের সামনে তাকে নিয়ে ঠাট্টা তামাশাও করা হয়।

তার বাবা-মা আরো জানিয়েছেন, তাদের ছেলে এতটাই অপমানিত হয়েছে যে সে আর স্কুলেই যেতে চাইছে না। তবে ওই ঘটনা পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন স্কুলের প্রিন্সিপাল। তিনি জানিয়েছেন, এ ধরনের কোনো ঘটনাই ঘটেনি। আর স্কুলের নিয়ম অনুযায়ী সেখানে নাপিত রাখা হয়েছে। যদি কেউ ইউনিফর্মের নিয়ম না মানে তবে তার চুল কেটে দেওয়া হয়। কেননা বড় চুল ইউনিফর্মের পরিপন্থি। আর এটা করা হয় স্কুলের নিয়ম মেনেই। তবে ওই দিনের ঘটনা সম্পর্কে তার জানা নেই এমনটাই মন্তব্য করেছেন তিনি।

ওই ঘটনার পর ছাত্রটির মা জানিয়েছেন, ‘আমার ছেলে সেপ্টেম্বরের ২০ তারিখে চুল কাঁটিয়েছিল। অথচ ২৪ তারিখেই তার সঙ্গে এমন আচরণ করা হয়েছে। আসলে ইচ্ছা করেই ছেলেটার সঙ্গে এমন করা হয়েছে। নাপিত ডেকে জোর করে তার চুল কাঁটানো হয়েছে। এরপর তার সহপাঠী এবং স্কুলের কর্মচারীরা তাকে নিয়ে হাসি তামাশা করেছে।’

তিনি আরো জানিয়েছেন, তারা এ বিষয়ে তদন্তের জন্য পুলিশের কাছে যাবেন। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলে বোর্ড পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। এ সময় এমন ঘটনায় তার মনের ওপর প্রভাব পড়েছে। পড়ালেখার প্রতি তার আগ্রহ কমে গেছে। আর স্কুলে যেতে সে এখন ঘোর আপত্তি জানাচ্ছে।’