মেইন ম্যেনু

নাম পাল্টেও পিস স্কুল চালানো যাবে না

নাম পাল্টে দিয়ে অনুমোদনহীন কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালানো যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ।

শনিবার রাজধানীতে এইচএসসি শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ভর্তি বিষয়ক এক কর্মশালায় তিনি এ কথা বলেন।

গত ২ আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারি করা এক আদেশে সারাদেশে পিস নাম ব্যবহার করে সব স্কুল বন্ধের নির্দেশনা দেয়া হয়।

শিক্ষামন্ত্রীর অভিযোগ, এই স্কুলগুলো পরিচালনা করছে স্বাধীনতাবিরোধীরা। আর এই স্কুলগুলো জঙ্গি তৈরির ক্ষেত্রকে উৎসাহিত করে।

এই আদেশের পর দেশের ১৫টি জেলার ২৯টি পিস স্কুল বন্ধ হয়ে যায়। তবে ঢাকার লালমাটিয়ায় পিস স্কুল কর্তৃপক্ষ নতুন নামে নিবন্ধন নেয়ার কথা জানিয়েছে অভিভাবকদের। রবিবার থেকে এই নামে স্কুলের কার্যক্রম চালু থাকবে বলেও জানানো হয় এসএমএস করে।

ঢাকার বাইরেও ফেনী, দিনাজপুর, গাজীপুরসহ বিভিন্ন জেলায় পিস স্কুলের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা প্রতিষ্ঠানের নাম পাল্টানোর পরিকল্পনার কথা শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদেরকে জানিয়েছেন।

আবার নিষিদ্ধ হওয়ার আগেই রাজশাহীর পিস স্কুল কর্তৃপক্ষ নাম পাল্টে ‘লিজেন্ড একাডেমি’ করে ফেলেছে। এই কৌশলের কারণেই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা কার্যকর নিয়ে প্রশ্ন ওঠে।

তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, পিস স্কুল কর্তৃপক্ষের নাম পাল্টানোর কৌশলের বিষয়ে জানেন তারাও। বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকতে স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, পিস স্কুলের তৎপরতার বিষয়ে আগে থেকেই খোঁজ খবর নিচ্ছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জোগাড় করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রতিবেদনও পাঠানো হয়েছে। তাই স্কুলগুলোর যে কোনো অপকৌশল কঠোরহাতে নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘দেশে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনুমোদনহীন, এর মধ্যে পিস স্কুল অন্যতম। গণমাধ্যম ও পুলিশের মাধ্যমে এ স্কুলের অনেকগুলো শাখার তথ্য পেয়েছি। এসব স্কুলের শিক্ষক ও এর সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা স্বাধীনতার পক্ষের নয়। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি নাম পরিবর্তন করেও চালানো যাবে না।’

মন্ত্রী বলেন, দেশের বিভিন্ন এলাকায় পিস স্কুলের শাখায় যে মানসিকতায় শিক্ষার্থীদের গড়ে তোলা হয়, তা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য মঙ্গলজনক নয়। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে আমরা ইতোমধ্যে পিস স্কুলের কার্যক্রম বন্ধ রেখেছি। প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন বিষয় আরও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’