মেইন ম্যেনু

নারীদের কর্মসূচির মধ্যে পুরুষের নগ্ন দৌঁড়

নারী অধিকার আন্দোলনে নামা শতাধিক নারী-শিশুর মধ্যে দিয়ে নগ্ন হয়ে দৌঁড় দিল মধ্যবয়সী এক পুরুষ। এ সময় পিটার বার্কার নামে ৪৫ বছরের ওই ব্যক্তির পায়ে ছিল শুধু একজোড়া বুট। এর বাইরে গায়ে একটা সুতোও ছিল না।

ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামের বিসটন পুরাতন মার্কেট স্কয়ারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নগ্ন হয়ে নারী-শিশুদের সামনে দিয়ে দৌঁড় দেওয়ার আগে নয় বোতল বিয়ার পান করেন বার্কার।

নারীদের ওপর সহিংসার প্রতিবাদে ও সচেতনতা সৃষ্টিতে গত ২৪ অক্টোবর এ র‌্যালি হয়।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, শরীরে ট্যাটু আঁকা বার্কার তার পোশাক খুলে এক বন্ধুর কাছে দিয়ে নগ্ন হয়ে বেরিয়ে পড়েন। এরপরই নারী প্রতিবাদকারীদের মধ্যে দিয়ে তিনি দৌঁড়াতে থাকেন। এ সময় এক পুলিশ কর্তা তাকে ধাওয়া করে। বেশ কিছুক্ষণ পুলিশের ঘাম ছুটিয়ে অবশেষে ধরা পড়েন বার্কার।

সাবেক চাকরিজীবী পিটার বার্কার প্রথমে নগ্ন হয়ে রাস্তা পার হন। পরে শ’খানেক নারী-শিশুর ওই কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দৌঁড় দেন।

নটিংহ্যাম ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে বার্কার বলেন, শুধুমাত্র কৌতুক করতেই তিনি এ কাজ করেন। যে পুলিশ কর্মকর্তা তাকে গ্রেফতার করেছেন তাকে তিনি তা জানিয়েছিলেন।

বার্কারের আইনজীবী মার্ক কেনেডি বলেছেন, বার্কার মধ্যহ্নভোজের সময় ও বিকেলে বিয়ার পান করেছিলেন এবং স্কয়ারের মধ্যে দৌঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন। তিনি নারীদের ওই কর্মসূচি সম্পর্কে জানতেন না। নারী বা শিশুদের উত্যক্ত করার কোন ইচ্ছা তার ছিল না।

ডেপুটি জেলা জজ রিচার্ড মার্শাল বার্কারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ”ধরে নিচ্ছি যে ইচ্ছাকৃতভাবে কাউকে বিবৃত করতে আপনি এমনটা করেননি। কিন্তু সেখানে অনেক নারী-শিশু ছিল। তাদের অনেকে বিব্রত হয়েছেন। এছাড়া যে সংখ্যাক নারী-শিশু সেখানে ছিল তা সম্পর্কে একেবারে অবহিত না হওয়াটা বিশ্বাসযোগ্য নয়।

আদালত বার্কারকে ৮০ ঘন্টা বিনা পারিশ্রমিকে কাজ ও বিভিন্ন চার্জ বাবদ ৩২৫ ইউরো জমা দিতে আদেশ দিয়েছেন। -ডেইলি মেইল।



« (পূর্বের সংবাদ)