মেইন ম্যেনু

নারীর সংখ্যা বাড়ছে আ.লীগের কেন্দ্রে

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন ঘিরে দলের মধ্যে তৈরি হয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনার বুদবুদ। এর মধ্যে যেমন রয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটির কলেবর বৃদ্ধির কথা, তেমনি আছে নারী নেতৃত্ব বাড়ার সম্ভাবনা। বর্তমান ৭৩ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটিতে শেখ হাসিনাসহ নারী নেতা রয়েছেন নয়জন। বর্ধিত কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্যসংখ্যা হবে ৮১, যেখানে যোগ হচ্ছেন আরও বেশ কজন নারী।

দলের নীতি-নির্ধারণী একাধিক নেতা জানান, আগামী ২৮ মার্চ সম্মেলনের মাধ্যমে নারী নেতৃত্বে অন্তর্ভুক্তি বা বৃদ্ধির পাশাপাশি বর্তমান কমিটির কয়েকজন নারী নেতা বাদও পড়তে পারেন।

দলের বর্তমান কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটিতে ১০ জন নারী নেতা ছিলেন। তাদের ম্যধ্যে সভাপতিম-লীর সদস্য সৈয়দা জোহরা তাজউদ্দীন মারা গেছেন। অন্য নয়জন হলেন- সভাপতি শেখ হাসিনা, সভাপতিম-লীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, বেগম মতিয়া চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা, কেন্দ্রীয় সদস্য সিমিন হোসেন রিমি ও মুন্নুজান সুফিয়ান।

আ.লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের মতে, দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয় কমিটিতে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক নারী নেতৃত্ব নিয়ে আসতে চান। কাকে কাকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে নেওয়া যেতে পারে, সে সম্পর্কে তিনি ঘনিষ্ঠজনদের মতামত জানতে চেয়েছেন বলে দলের সূত্র জানান।

সম্পাদকমণ্ডলীর একাধিক সদস্য জানান, এর আগে দেশের কোনো রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বে নারীদের প্রাধান্য দেয়া হয়নি। তাই আওয়ামী লীগের এবারের সম্মেলনে নারী নেতৃত্বের অন্তর্ভুক্তি ঘটবে উল্লেখযোগ্য হারে। বিষয়টি চমক হিসেবেও দেখা যাবে।

কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পেতে পারেন এমন বেশ কজন নারী নেতা আলোচনায় আছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম; মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী; হুইপ মাহবুব আরা গিনি; মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফুন নেসা মোশাররফ; যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আক্তার, সাধারণ সম্পাদিকা অপু উকিল; সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, সানজিদা খানম, বেগম ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি; মহিলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন জাহান সাথী।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, যেসব নারী নেতৃত্ব অতীতে আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথে ছিলেন, দলের জন্য নানা ত্যাগ স্বীকার করেছেন, রাজনৈতিকভাবে মেধাবী ও শিক্ষিত, তাদের দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে আনার চিন্তা-ভাবনা করছেন দলের নীতিনির্ধারণী নেতারা।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ বলেন, “আগামী কেন্দ্রীয় কমিটিতে বেশ কিছু পদে নতুন নারী মুখ দেখতে পাবেন। এ জন্য কিছু পদ সৃষ্টি করাও হতে পারে।”