মেইন ম্যেনু

নায়ক যখন খলনায়ক

বলিউডে এখন কেবল নায়ক-নায়িকাকে নির্ভর করে সিনেমা তৈরি হয় না। সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রগুলোও যথেষ্ট অভিনয়ের সুযোগ পান।

ফলে নায়কেরা শুধুই ইতিবাচক রোলে অভিনয় করছেন এমন নয়। ভালো স্ক্রিপ্ট পেলে তারা নেতিবাচক রোলেও অভিনয় করছেন চুটিয়ে। এই ধারণার সবচেয়ে বড় প্রতীক বোধ হয় বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। জীবনের প্রথম ছবি থেকেই তিনি নেগেটিভ রোলে অভিনয় করেই সাফল্যের শিখরে উঠেছেন। তার দেখাদেখি বহু অভিনেতাই সে পথে হেঁটেছেন।

জেনে নিন এখনকার কোন কোন বলিউড সুপারস্টার নেগেটিভ রোলেও অভিনয় করে সুপারহিট হয়েছেন।

হৃতিক রোশন : হৃতিক রোশনকে বোধ হয় দুনিয়ার সবচেয়ে সুন্দর দেখতে ভিলেন মনে হয়েছে ধুম-২ সিনেমায়। সিনেমায় কেতাদুরস্ত ডাকাত সাজলেও দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন তিনি।

আমির খান: ধুম-৩ সিনেমায় নেতিবাচক চরিত্রে হৃতিকের জায়গায় আসেন আমির খান। সিনেমাটি বক্স অফিসে বহু রেকর্ড চুরমার করে দেয়। এখানে ডবল রোলে দেখা গিয়েছিল আমিরকে।

জন আব্রাহাম: ধুম সিরিজ শুরু হয়েছিল জন আব্রাহামকে দিয়ে। প্রথম সিনেমায় নেতিবাচক রোলে দর্শকদের মুগ্ধ করেছিলেন জন।

রীতেশ দেশমুখ : এক ভিলেন সিনেমায় নেগেটিভ রোলে অভিনয় করেন রীতেশ। প্রথমবার এমন রোলে অভিনয় করলেও যথেষ্ট সাবলীল ছিলেন তিনি।

সঞ্জয় দত্ত : অমিতাভ বচ্চনের অগ্নিপথ সিনেমা রিমেকে নায়ক ছিলেন হৃতিক আর খলনায়ক চরিত্রে মাতিয়ে দেন সঞ্জয় দত্ত।

শাহরুখ খান : ডর, বাজিগর সহ একাধিক সিনেমায় নেগেটিভ রোলে অভিনয় করেন শাহরুখ। নায়ক হিসেবেও যে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করা সম্ভব, তা সফলভাবে করে দেখিয়েছেন কিং খানই।

সাইফ আলী খান : ওমকারা সিনেমায় জীবনের অন্যতম সেরা চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাইফ। চরিত্রটি নেতিবাচক হলেও সাইফের অভিনয় সর্বত্র প্রশংসিত হয়।

ইমরান হাশমি : বলিউডের ‘সিরিয়াল কিসার’ ইমরান অত্যন্ত দক্ষ অভিনেতা। তার ছাপ তিনি রেখেছেন ওয়ান্স আপন আ টাইম ইন মুম্বাই সিনেমায় নেতিবাচক চরিত্রে অভিনয় করে।

বিবেক ওবেরয় : খুব বেশি সিনেমায় এখন তাকে দেখা না গেলেও কৃষ-৩ সিনেমায় নেতিবাচক চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করেন বিবেক ওবেরয়।