মেইন ম্যেনু

না জেনে চুল কাটালে পস্তাবেন

বিভিন্ন বিশেষ দিবসকে সামনে রেখে আমরা সবাই চুল কাটাই। হেয়ারকাট নিয়ে বাসায় ফিরে মন খুঁতখুঁত করে। কাটটি ভাল হলো তো? কেমন যেন লাগছে? বন্ধুদের জিজ্ঞেস করতে হয়, মানালো কিনা। এসব থেকে মুক্তি পেতে পারেন যদি আপনি হেয়ারকাটটি নেয়ার আগেই একটু ভেবে নেন। তাহলে আর সমস্যা হওয়ার কথা না। তাই হেয়ারকাট দেয়ার আগে জেনে নিন কিছু টিপস।

মুখের আকৃতি: সর্ব প্রথম আপনার মুখের আকৃতিকে বুঝতে হবে। যদি গোল হয় তাহলে এক রকম হেয়ারকাট মানাবে। আবার চেহারা লম্বা হলে মানাবে আর এক রকম। তাই জেনে নিন আপনার মুখের আকৃতিটি কেমন? চেহারার আকৃতি জেনেই হেয়ারকাট করুন। চোয়ারটা খেয়াল করুন।

কেমন হেয়ারকাট মানাবে: ডিম্বাকৃতির মুখ সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয় দেখায়। নিজের মুখটি প্রয়োজনে কাগজে একে নিন। নিজের ছবির উপর বিভিন্ন স্টাইলের চুলের ছবি বসিয়ে নিন। সব মিলে গেলেই হেয়ারকাটটি দিন।

নিজর চুলকে আগে জানুন: নিজের চুলকে আগে জানুন। চুল সোজা না কোকঁড়া। তা দেখে নিন। সোজা চুলে যে স্টাইল মানাবে। কোকঁড়া চুলে তা কিন্তু মানাবে না। তাই হেয়ার এক্সপার্টের সঙ্গে প্রয়োজনে কথা বলে নিন। মোলোয়েম বা রুক্ষ চুলের স্টাইল ভিন্ন ভিন্ন হবে এটাই স্বাভাবিক।

অযাচিত স্টিাইল করতে যাবেন না: কোন স্টারকে দেখে তার মতো স্টাইল করতে যাবেননা। ভাববেন না যে আপনাকেও সেই স্টাইলেই মানাবে। আগে দেখে বুঝে তারপর কাট দিন।

নিজের জীবনাচার মাথায় রাখুন: অনেক হেয়ার স্টাইল আছে, যেগুলোতে নিয়মিত যত্ন নিতে হয়। নইলে সৌন্দর্য ঠিক থাকে না। আবার যত্ব নিতে সময়ও লাগে প্রচুর। তাই সেরকম কাট নেয়ার মতো সময় অর্থ দুটোই আছে কিনা তা মাথায় রেখেই কাট দেয়া উচিৎ।

চুল কতটা কাটবেন: চুল কেটে এসে পস্তালে চলবে না বেশি কাটা হয়ে গেছে বলে। তাই চুল কাটার আগেই ভেবে নিন আপনার চুলের পরিবর্তন কতটুকু করবেন। হেয়ার এক্সপার্টকে সেই মতো কাট বুঝিয়ে বলুন।