মেইন ম্যেনু

নিউইয়র্কে মুখোমুখি অবস্থানে আওয়ামী লীগ-বিএনপি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিউইয়র্ক সফরকে কেন্দ্র করে মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে সেখানকার আওয়ামী লীগ ও বিএনপি শাখা। পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি দিয়েছে সংগঠন দু’টি ও এর বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন।

শেখ হাসিনার জাতিসংঘের ‘চ্যাম্পিয়ন্স অব দ্য আর্থ’ এবং তথ্য-প্রযুক্তির উন্নয়নে অসামান্য অবদানের পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় ও তাঁর শুভ জম্মদিন উপলক্ষে আনন্দ সমাবেশ করবে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ শক্তির সম্মিলিত জোট। ২৮ সেপ্টেম্বর সোমবার নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটস্থ ডাইভার্সিটি প্লাজায় সন্ধ্যা ৭টায় এ অনুষ্ঠান হবে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সকল অনুষ্ঠানস্থলে অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকার পাশাপাশি বিএনপি-জামাত-শিবিরের যে কোন অপতৎপরতা রুখে দিতে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গঠন করা হয়েছে ৩৬৪ সদস্যের সমন্বয় কমিটি। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর নিউইয়র্ক অবস্থানকালে বিক্ষোভ সমাবেশ ও সর্বাত্মক প্রতিরোধ গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছে নিউইয়র্ক বিএনপি।

আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি

২৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে অবতরণের পর ১ অক্টোবর লন্ডনের উদ্দেশ্যে নিউইয়র্ক ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সকল অনুষ্ঠানস্থলে অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকায় থাকার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন গঠিত সমন্বয় কমিটি। নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গঠিত এ সমন্বয় কমিটির আহবায়ক নূরনবী কমান্ডার, প্রধান সমন্বয়কারি জাকারিয়া চৌধুরী এবং সদস্য সচিব করা হয়েছে ইমদাদ চৌধুরীকে।

গত রবিবার মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির সম্মিলিত জোটের প্রস্তুতি সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শেখ হাসিনার জন্মদিনের এই কর্মসূচিতে যোগদানের জন্যে প্রবাসী বাঙালিদের সাদর আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ড. প্রদীপ রঞ্জন করের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় উল্লেখ করা হয়, ২৩ সেপ্টেম্বর রাতে জেএফকে এয়ারপোর্টে অবতরণের সময় প্রধানমন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধু কণ্যাকে সাদর অভ্যর্থনা জ্ঞাপনের পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষ শক্তির যে কোন অপতৎপরতা কঠোরভাবে দমনে সোচ্চার থাকবেন এ জোটের নেতা-কর্মীরা।

সভায় বিদেশে দেশের ভাবমূতি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান এবং সকল ষড়যন্ত্রকারীকে প্রতিরোধ করার সংকল্প ব্যক্ত করা হয়। সভায় অংশগ্রহণকারী সকলেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে ২৭ সেপ্টেম্বরের কর্মসূচির সমর্থনে জনসংযোগ চালানোর অঙ্গিকার করেন।

অপরদিকে, ‘যেখানে বিএনপি সেখানেই প্রতিরোধ’ কর্মসূচিকে সর্বাত্মক সফল করতে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গঠিত সমন্বয় কমিটির সভায়ও শপথ গ্রহণ করে বলা হয় যে, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগেও জামায়াত-শিবিরের এজেন্ট থাকতে পারে। তাদের ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। জেএফকে এয়ারপোর্টের সকল এলাকায় বঙ্গবন্ধুর সৈনিকেরা অবস্থান নিয়ে বিএনপি-জামায়াত-শিবিরকে বিতাড়িত করা হবে।

সমন্বয় কমিটির উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্যরা হলেন- নুরল আমিন, ইঞ্জিনিয়ার মোতাহার হোসেন, সিরাজুল মাওলা, হাজী আবুল হাসেম, মো. শহিদুল্লাহ, আব্দুল হাই জিয়া, আজিজুর রহমান সাবু, রফিকুল বারী চৌধুরী, খোরশেদ খন্দকার, যুগ্ম আহ্বায়ক আ. সাকুর খান মাখন, হাজী মফিজুর রহমান, মাসুদ হোসেন সিরাজী, হাজী জামাল উদ্দিন। সমন্বয়কারীরা হলেন মিসবা আবদীন, সাইকুল ইসলাম, যুগ্ম সদস্য সচিব মিনহাজ শরীফ রাসেল, নুরুল আমিন বাবু, আইয়ুব আলী।

বিএনপির প্রস্তুতি

‘যেখানে হাসিনা সেখানেই প্রতিরোধ’ কর্মসসূচির আওতায় ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির ডাইভার্সিটি প্লাজায় বিএনপির অঙ্গরাজ্য শাখার উদ্যোগে জনসংযোগ অনুষ্ঠিত হয়। বিক্ষোভ-সমাবেশের মধ্য দিয়ে এ প্রস্তুতি সমাবেশে নেতৃবৃন্দ নিউইয়র্ক সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে প্রচন্ড বিক্ষোভে সকলকে অংশগ্রহণের আহবান জানান। শেখ হাসিনাকে ‘অবৈধ প্রধানমন্ত্রী’ অভিহিত করে বক্তারা বলেছেন, ‘জাতিসংঘসহ মার্কিন রাজনীতিকদের বাংলাদেশের পরিস্থিতি সবিস্তারে অবহিত করার স্বার্থেই ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সপ্তাহব্যাপি কর্মসূচিকে সর্বাত্মক সফল করতে হবে।’

নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপি’র সভাপতি মাওলানা অলিউল্লাহ্ মো. আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাঈদের পরিচালনায় এ প্রস্তুতি সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি’র সাবেক কোষাধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি এম এ খালেক আকন্দ, তারেক পরিষদ আন্তর্জাতিক কমিটির মহাসচিব জসিমউদ্দিন, সহ-সভাপতি ওয়াহেদ আলি মন্ডল, সহ-সভাপতি তরিকুল্লাহ চৌধুরী দিপু, সিটি বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. আশরাফ হোসেন, সহ-সভাপতি আলহাজ শহিদুল ইসলাম শিকদার, স্টেট বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলমগীর, নিউইয়র্ক বিএনপি’র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. রইছ উদ্দিন, হুমায়ুন কবির, আশিক তালুকদার, মো. আল আমিন, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপি’র প্রচার সম্পাদক মো. আরিফুর রহমান, নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপি’র ধর্মবিষয়ক সম্পাদক নুরল আলম প্রমুখ।

একই কর্মসূচির সমর্থনে ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার আরও তিনটি প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয় জ্যাকসন হাইটস ও ব্রুকলীনে। যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রদলের সভাপতি আতাউর রহমান আতার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় অতিথি ছিলেন যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক সম্পাদক এম এ বাতিন। আলোচনায় আরো অংশ নেন যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম জনি।

তারেক রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন সংগ্রাম কমিটির প্রধান পারভেজ সাজ্জাদের সঞ্চালনে একই সময়ে আরেকটি প্রস্তুতি সমাবেশ হয় ‘টক অব দ্য টাউন’ রেস্টুরেন্টের মিলনায়তনে। যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির আরেকটি প্রস্তুতি সভা হয়েছে ব্রুকলীনে গ্রীণহাউজ পার্টি সেন্টারে। সভাপতিত্ব করেন আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ সম্রাট এবং বক্তব্য রাখেন আলহাজ্ব সোলায়মান ভুইয়া, গিয়াস আহমেদ, মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল, মাহফুজুল মাওলা নান্নু, জাহাঙ্গির সোহরাওয়ার্দি, হাজী আবু তাহের প্রমুখ।-এনআরবি নিউজ