মেইন ম্যেনু

নিখোঁজ অনেক বাংলাদেশি হাজি

সৌদি আরবের মিনায় পদদলিত হয়ে এখন পর্যন্ত পাঁচজন বাংলাদেশি নিহতের খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। আহত হয়েছেন ১৫ জন। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত অনেক বাংলাদেশি হাজি নিখোঁজ রয়েছেন।

সৌদি আরবে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল এ কে এম শহিদুল করিম জানিয়েছেন, এখনও ৪০ জনের বেশি বাংলাদেশি হাজি নিখোঁজ আছেন। বিভিন্ন হাসপাতালে খোঁজ নেয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ দূতাবাস তৎপর রয়েছে বলেও জানান তিনি।

হজ মিশন সূত্রে জানা গেছে, নিহত বাংলাদেশিরা হলেন জামালপুরের বাসিন্দা ফিরোজা বেগম (৫৪); সুনামগঞ্জের হাজিপাড়া এলাকার বাসিন্দা জুলিয়া হুদা (৪০); ফেনীর তাহেরা বেগম (৭৩); তার ভাই নূর নবী মিন্টু (৬৯) এবং মুন্সীগঞ্জের জাহানারা আরজু।

বৃহস্পতিবার সকালের এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭১৭ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন আট শতাধিক।

মক্কায় বাংলাদেশ হজ অফিস বাংলাদেশি হাজিদের খবর পেতে হটলাইন চালু করা হয়েছে। হটলাইন নম্বর হলো- +৯৬৬৫ ৩৭৩৭ ৫৮৫৯ এবং +৯৬৬৫ ০৯৩৬ ০০৮২।

এ দিকে এ ঘটনায় কর্তৃপক্ষের অবহেলা ছিল বলে অভিযোগ করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে সৌদি কর্তৃপক্ষ এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তারা জানিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকার কিছু হাজির কারণেই ঘটেছে এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা।

এ ঘটনা সৌদি বাদশাহ সালমান হজ সংঘটন সংস্থার বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন। কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে একটি তদন্ত শুরু করেছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, প্রত্যক্ষদর্শী লিবিয়ার নাগরিক আহমেদ আবু বকর (৪৫) বলেন, সেখানে অত্যন্ত ভিড় ছিল। পুলিশ একটি ছাড়া হজ ক্যাম্পের সবগুলো প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ বন্ধ করে দেয়। তিনি ও তার মা পদদলিত হওয়া থেকে থেকে রক্ষা পান। তার কাছে ঘটনাস্থলে দায়িত্বরত পুলিশদের অনভিজ্ঞ মনে হয়েছে।