মেইন ম্যেনু

নিখোঁজ ৪ মাদ্রাসাছাত্রের ৩ জন উদ্ধার

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ থেকে নিখোঁজ হওয়া চার মাদ্রাসাছাত্রের মধ্যে তিন জনকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিখোঁজ হওয়া আজহারুল ইসলাম নয়নের ফুফুর বাড়ি বানিয়াচং উপজেলার বালিখাল গ্রাম থেকে শনিবার রাত ৯টার দিকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

নয়নের বড় ভাই ফাহিম মিয়া জানান, ওই শিশুরা শনিবার রাতে বালিখাল গ্রামে তার ফুফুর বাড়িতে যায়। শায়েস্তাগঞ্জের দরিয়াপুরের সোহানুর তার বাড়িতে চলে গেছে বলে উদ্ধারকৃত শিশুরা জানিয়েছে।

উদ্ধারকৃত তিন শিশু হলো- বাহুবল উপজেলার পশ্চিম শাহাপুর প্রকাশিত চারগাঁও গ্রামের আহমদ রশিদ মনুর ছেলে তানভীর রশিদ রাফি (১৩), তার ভাগিনা একই উপজেলার আব্দানারায়ন গ্রামের আব্দুল আহাদের ছেলে ইমতিয়াজ আহমেদ (১২), নবীগঞ্জ উপজেলার সুজাপুর গ্রামের আব্দুল্লাহর ছেলে আজহারুল ইসলাম নয়ন (১২)। নিখোঁজ হওয়া অপর শিশু শায়েস্তাগঞ্জের দরিয়াপুর গ্রামের আব্দুল আওয়ালের ছেলে সোহানুর রহমান (১১) নিজের বাড়িতে চলে গেছে বলে জানিয়েছে উদ্ধারকৃত শিশুরা।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, তিন জনকে পাওয়া গেছে। তিনি ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার থেকে চার মাদ্রাসা নিখোঁজ ছিলেন। চার শিশুই শায়েস্তাগঞ্জের সুতাং বাজার এলাকার বাছিরগঞ্জ পূর্ব নোয়াগাঁও হাজী সুরুজ আলী হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র।

স্থানীয়রা জানান, পাঞ্জাবি বানানোর কথা বলে শুক্রবার বিকেলে ওই চার শিশু মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে শায়েস্তাগঞ্জ যায়। এরপর থেকে তাদের আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। এ ঘটনায় তাদের পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নেন।

উদ্ধার হওয়া রশিদ রাফির বাবা আহমদ রশিদ মনু শনিবার বিকেল ৪টায় শায়েস্তাগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সন্ধ্যায় বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের ৪ শিশু অপহৃত হয়। পাঁচ দিন পর বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে ওই গ্রাম থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে ইছাবিল নামক স্থানে বালুর গর্তে মাটিচাপা অবস্থায় ওই শিশুদের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।