মেইন ম্যেনু

নিজামীর মৃত্যুদণ্ড বহাল : চট্টগ্রামে মিষ্টি বিতরণ

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখায় চট্টগ্রামে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন সংগঠন।

বৃহস্পতিবার সকালে নিজামীর করা রিভিউ (রায় পুনর্বিবেচনা) আবেদন খারিজ করে রায় দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ। বেঞ্চের অন্য তিন বিচারপতিরা হলেন ; বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

এদিকে, আবেদন খারিজের পরপরই নগরীতে গণজাগরণ মঞ্চ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এবং ছাত্রলীগ পৃথক ভাবে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরীর চেরাগী পাহাড় চত্বরে মিলিত হন গণজাগরণ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। রায় ঘোষণার পরই গণজাগরণ মঞ্চের সদস্য সচিব ডা. চন্দন দাশ ও সমন্বয়কারী শরীফ চৌহানের নেতৃত্বে নেতা কর্মীরা সন্তোষ প্রকাশ করে মিছিল বের করেন। মিছিলটি নগরীর আন্দরকিল্লা মোড় ঘুরে আবারো চেরাগী পাহাড় মোড়ে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় সমাবেশে বক্তারা বলেন, এ রায়ের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতি ন্যায়বিচার পেয়েছে। রিভিউ খারিজের পর নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে আর কোন বাধা নেই। আমরা অবিলম্বে নিজামীর ফাঁসি দেখতে চাই।

এদিকে ১২টার দিকে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ড অফিস থেকে আনন্দ মিছিল বের হয়। মিছিলটি এখন নগরীর বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশ ও আনন্দ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার মাহবুবুল আলম চৌধুরী, এ কে এম সরোয়ার কামাল, প্রচার কমান্ডার মো. নাসির উদ্দিন, ক্রীড়া কমান্ডার বদিউজ্জামান, দফতর কমান্ডার এ কে এম আলাউদ্দিন, প্রকল্প কমান্ডার এস.এম ইলিয়াছ চৌধুরী, সেকান্দর আলম চৌধুরী প্রমুখ।

নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল থাকায় নগরীতে আনন্দ মিছিল ও নেতাকর্মীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করেছে ছাত্রলীগ নগর শাখা। রায় ঘোষণা উপলক্ষে সকাল ১১টার পর থেকে নগরীর দারুল ফজল মার্কেট চত্বরে সমাবেশ করে ছাত্রলীগ।

রায় ঘোষণার পরপরই নেতাকর্মীরা আনন্দে ফেটে পড়েন। এবং একে অপরকে মিষ্টি মুখ করান। পরে নিউ মার্কেট এলাকায় আনন্দ মিছিল বের হয়। এসময় মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রণিসহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।