মেইন ম্যেনু

নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে চলছে আত্রাইয়ের ভবানীপুর হাটের ড্রেন নির্মাণের কাজ

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর (নওগাঁ) সংবাদদাতা: নওগাঁর আত্রাই উপজেলার ভবানীপুর-মির্জাপুর হাটের ড্রেন নির্মাণে নিম্ন মানের সামগ্রী দ্বারা কাজ করার ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় যে কোন সময় ভেঙে পড়তে পারে এই ড্রেনেজ ব্যবস্থা। অথচ প্রকাশ্যে এ অনিয়ম চললেও নীরব কর্তৃপক্ষ। আত্রাই উপজেলা প্রকৌশলীর পক্ষ থেকে নিম্নমানের ইট, বালুসহ বিভিন্ন সামগ্রী দিয়ে কাজ করতে নিষেধ করলেও মানছে না ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। এমন নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে তৈরি ড্রেন গুলো ভবানীপুর বাজারের ব্যবসায়ীদের জলাবদ্ধতা নিরসনে কতটা কার্যকর হবে, তা নিয়ে শঙ্কিত ব্যবসায়ীরা। শিডিউল অনুযায়ী ভালো মানের ইট, বালু ব্যবহারের নিয়ম থাকলেও তার পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে ভাঙ্গা ইট ও নিম্ন মানের বালু। ফলে এ নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করায় ড্রেনের স্থায়িত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

এ বিষয়ে শাহাগোলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ শফিকুল ইসলাম বাবু জানান, ভবানীপুর বাজারে ড্রেনেজ ব্যবস্থা হওয়ায় আমরা এলাকাবাসী অতান্ত খুশি কিন্তু নিম্নমানের ইট, বালুসহ অন্যান্য সামগ্রী ব্যবহার করায় বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলীকে জানালে তিনি ইট ও বালু পরিবর্তন করে কাজ করার কথা বললেও তা মানছেনা ঠিকাদার কর্তৃপক্ষ।

নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করার কথা স্বীকার করে উপজেলা প্রকৌশলী মোবারক হোসেন বলেন, আমি গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় লোকজনের মৌখিক অভিযোগের পেক্ষিতে সন্ধ্যায় সরেজমিনে ভবানীপুর হাটের ড্রেন নির্মাণের কাজ এবং কাজের সামগ্রী দেখে ইট বালু পরিবর্তনের কথা বলে এসেছি। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান তার পরও যদি নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করে তাহলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক ভবানীপুর বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জানান, আমরা সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান এসএম মোয়াজ্জেম হোসেন চান্দুকে বিষয়টি অবহিত করলেও তিনি কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। এদিকে এ ভাবে অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে কাজ করা ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে ভালোমানের সামগ্রী দিয়ে ড্রেন নির্মাণের ব্যবস্থা নিতে তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।