মেইন ম্যেনু

নির্বাচনে হেরে ইউনিয়ন পরিষদের জানালা খুলে নিলেন সাবেক চেয়ারম্যান

জামালপুর সদর উপজেলার তিতপল্লা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ভবনের দেয়াল ভেঙে জানালা ও চেয়ার নিয়ে গেছেন সাবেক চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান। নির্বাচনের আগে এগুলো তিনি ইউনিয়ন পরিষদে উপটৌকন হিসেবে দিয়েছিলেন। কিন্তু সদ্যসমাপ্ত ইউপি নির্বাচনে হেরে গিয়েই তিনি এ কাজ করেছেন বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বিজয়ী প্রার্থীকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার আগেই পরাজিত প্রার্থী আজিজুর রহমান গত বুধবার লোকজন নিয়ে পরিষদ ভবনের আসবাব নিয়ে যান। এরপর থেকে ছয় দিন ধরে পুরো ভবনটি অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে।

গত ৩১ মার্চ জামালপুর সদর উপজেলার তিতপল্লা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আজিজুর রহমান বিদ্রোহী প্রার্থী মো. হারুন-অর রশিদের কাছে পরাজিত হন।

সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, পরিষদ ভবনের ১৫টি কক্ষের কোথাও জানালা নেই। শুধু রয়েছে দেয়াল ভেঙে জানালা খুলে নেওয়ার চিহ্ন। গ্রাম আদালতের বিচারকাজ পরিচালনার কক্ষের চেয়ারগুলোও নেই। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন জানান, ভবনের ১৫টি কক্ষে থাই কাচের ২৯টি জানালা, ২৫টি চেয়ার ও একটি ২১ ইঞ্চি রঙিন টেলিভিশন নিয়ে গেছেন সাবেক চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান।

এলাকাবাসী বলেন, ইউপি নির্বাচনে হেরে গেলেও ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায় তিনি সরকারি টাকায় নির্মিত ভবনের আসবাব অন্যায়ভাবে নিয়ে যাওয়ার সাহস পেয়েছেন।

ওই ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. হারুন-অর রশিদ বলেন, ‘সোমবার উপজেলা প্রশাসন আমাকে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছে। দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার জন্য পরিষদ ভবনে এসে দেখতে পাই কোনো কক্ষেই জানালা ও চেয়ার নেই। পরে জানতে পারি, সাবেক চেয়ারম্যান ওই সব খুলে নিয়ে গেছেন।’ বিষয়টি তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানাবেন বলে জানান।

এ বিষয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান বলেন, ‘পরিষদ ভবনে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাঠের জানালা লাগানোর কথা ছিল। কিন্তু একটু রুচিশীল করতে আমার নিজের টাকায় থাই জানালা লাগিয়েছিলাম। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সঙ্গে আলোচনা করেই আমার লাগানো জানালা খুলে নিয়েছি।’

জামালপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল ছালাম বলেন, ‘ওই ভবনের জানালা খুলে নেওয়ার বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের সঙ্গে আমার কোনো কথাই হয়নি। তবে আসবাব ও জানালা খুলে নিয়ে গেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’