মেইন ম্যেনু

নিষিদ্ধ রাসেলই বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটার

টানা তিনটি ডোপ টেস্টে না থাকায় আন্দ্রে রাসেলকে নিষিদ্ধ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অ্যান্টি-ডোপিং কমিশন। ২০১৭ সালের ৩১ জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

এতে নিশ্চয়ই হতাশায় রয়েছেন রাসেল। তবে নিষেধাজ্ঞার মাঝে একটি সুসংবাদ পেয়েছেন তিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন এই অলরাউন্ডার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্লেয়ার্স’ অ্যাসোসিয়েশন ও ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ আয়োজিত বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এমন ঘোষণা তাকে কিছুটা হলেও স্বস্তি দিয়েছে।

তবে পুরস্কার বিতরণ মঞ্চে আলো কেড়েছেন রস্টন চেজ। বর্ষসেরা ক্রিকেটার ও বছরের সেরা টেস্ট ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। এছাড়া বর্ষসেরা উদীয়মান ক্রিকেটারের পুরস্কারও উঠেছে তার হাতে।

নিষিদ্ধ দ্রব্য সেবন করেছেন কি-না তা যাচাইয়ের জন্য আন্দ্রে রাসেলকে পরীক্ষা দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু টানা তিনটি পরীক্ষা দেননি রাসেল। এ কারণে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি-ডোপিং এজেন্সির নীতিমালা অনুযায়ী ক্যারিবিয়ান এ অলরাউন্ডারের নিষেধাজ্ঞা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পাশাপাশি ঘরোয়া ক্রিকেটেও এ নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে।

২০১৬ সালের মার্চে জ্যামাইকা অ্যান্টি-ডোপিং কমিশন রাসেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলে। ২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি, ১ জুলাই ও ২৫ জুলাই পরীক্ষা দেয়ার তারিখ থাকলেও রাসেল একটিতেও ছিলেন না।

২৭ বছর বয়সী আন্দ্রে রাসেল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দারুণ এক ক্রিকেটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ জয়ের পেছনে অসাধারণ ভূমিকা রেখেছিলেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই