মেইন ম্যেনু

নিষেধাজ্ঞা বিড়ম্বনায় ঐশ্বরিয়া

কয়েক বছরের মাতৃত্বকালীন বিরতির পর ২০১৫ সালে ‘জাজবা’র মাধ্যমে বড়পর্দায় ফেরেন ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। প্রত্যাশার ছিটেফোঁটাও পূরণ করেনি সিনেমাটি। এরপর ক্যারিয়ারের প্রথম বায়োপিক ‘সরবজিৎ’-এ একই ফল পান। এবার বিড়ম্বনায় পড়লেন ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ নিয়ে।

সবই ঠিকঠাক চলছিল। বড় বাজেট, বড় নির্মাতা ও গ্ল্যামারাস লুকের পাশাপাশি অ্যাশ পেয়েছিলেন প্রথমসারির সহশিল্পী। ঝামেলাটা শুরু ভারত-পাকিস্তানের রাজনৈতিক অস্থিরতা দিয়ে।

‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এ পাকিস্তানি তারকা ফাওয়াদ খান থাকলেও প্রথমে বলা হয় ‘ইন্ডিয়ান মোশন পিকচার্স প্রোডিউসার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়ছে না। কিন্তু এবার বেঁকে বসেছে ‘সিনেমা ওনার্স এগজিবিটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া’ (সিওইএআই)।

সংস্থাটি জানায়, যদি কোনো ছবিতে পাকিস্তানি অভিনেতা, গায়ক, সুরকার বা পরিচালক থাকেন তাহলে মহারাষ্ট্র, গুজরাট ও গোয়ায় প্রদর্শন করা যাবে না।

মহারাষ্ট্র নব নির্মাণ সেনা-সহ কয়েকটি কট্টরপন্থী দল পাকিস্তানি তারকাদের বয়কটের দাবি তোলে। তবে ‘সিওইএআই’এর সভাপতি নিতিন দাতার বলেন, ‘কোনো রাজনৈতিক চাপে পড়ে এই সিদ্ধান্ত নিইনি। জনগণের ভাবাবেগ মাথায় রেখেই এটা করা হয়েছে। যেসব ছবিতে পাক-অভিনেতা, সঙ্গীতকার, পরিচালক, কলাকুশলী কাজ করবেন তাদের আমরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করব।’

তিনি আরো জানান, দেশের অন্যান্য সংগঠনগুলোকেও নিষিদ্ধকরণে সামিল হতে অনুরোধ করবেন।

এ আপত্তির পুরোটাই যাচ্ছে করণ জোহর পরিচালিত ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’-এর বিরুদ্ধে। সিনেমাটি মুক্তি পাচ্ছে ২৮ অক্টোবর। আরো অভিনয় করেছেন আনুশকা শর্মা ও রণবীর কাপুর। বিশেষ চরিত্রে আছেন শাহরুখ খান।

একই কারণে আর্থিক ঝুঁকির মুখে পড়তে যাচ্ছে পাকিস্তানি তারকা মাহিরা খানের বিপরীতে শাহরুখ অভিনীত ‘রয়িস’।