মেইন ম্যেনু

নীলফামারীতে ১ টাকায় ১ মণ ধান !

নীলফামারীর সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের চাদেরহাট দেওয়ানী পাড়ার এক হাসকিং মিল মালিক মাইকিং করে ১ মণ ধান ১টাকা দরে ভেঙ্গেছে । সরকারি নিয়ম ও মিল মালিক সমিতির নির্দেশ উপেক্ষা করে এই প্রচারণা চালায় বিপাকে পড়েছেন জেলার সাড়ে চারশ’ মিল-চাতাল মালিক ।

জানা গেছে, নীলফামারী সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের চাদেরহাট দেওয়ানী পাড়ার এলাকার মৃত জালাল পন্ডিতের ছেলে নজরুল ইসলাম চাদেরহাট বাজারে নতুন একটি হাসকিং মিলের উদ্বোধন করেন । গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে এলাকায় মাইকিং করে ১টাকা মণ দরে ধান ভাঙ্গার ঘোষণা দেন । এই

ঘোষণার পর থেকে তার মিলে অসংখ্য মানুষ ধান ভাঙ্গার জন্য ভিড় জমায় । এতে বাজারে থাকা আরো ৬টি হাসকিং মিলে ওই ঘোষণার বিরুপ প্রভাব পড়ে ।
স্থানীয় পাটোয়ারী হাসকিং মিলের মালিক আব্দুস সোবহান জানান, গত ১৫ বছর ধরে তারা এখানে হাসকিং মিলের ব্যবসা করে আসছেন । ধান ভাঙতে পিডিপির প্রতি ইউনিটে খরচ হয় সাড়ে ১০টাকা । এক মণ ধান ভাঙতে বিদ্যুৎ খরচ হয় এক ইউনিট ।

কিন্তু এই নতুন মিল মালিক কিভাবে পোষাবেন তা কারোরই বোধগম্য নয় । অপর এক মিল মালিক অভিযোগ করেছেন, বিদ্যুৎ বিভাগের সাথে যোগসূত্র করে নজরুল ইসলাম তার ব্যবসা চালিয়ে নিচ্ছেন ।

জেলা হাসকিং মিল-চাতাল মালিক সমিতির সভাপতি রকিবুল হাসান অভিযোগ করেছেন, পিডিপির কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় নজরুল ইমলাম ১ টাকা দরে ধান ভাঙছেন । এই অবস্থা চলতে থাকলে জেলার সাড়ে ৪শ’ মিল মালিককে ব্যবসা বন্ধ করতে হবে ।

এব্যাপারে নীলফামারী আবাসীক বিদ্যুৎ অফিসের সহকারী প্রকৌশলী গোলাম মীর্জার সাথে কথা হলে তিনি এর কোন সদুত্তোর দিতে পারেননি ।