মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীতে ঔষধ বিক্রেতার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

এম.এ.আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : মাহবুবুর রহমান নাদিম নামের এক ঔষধ বিক্রেতা ডাক্তার না হয়েও ডাক্তারের ভূয়া পদ-পদবীতে ব্যবহার করে রোগীদের ব্যবস্থাপত্র দিয়ে প্রতারণা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নোয়াখালী সদর উপজেলার মান্নান নগর চৌরাস্তা বাজারের ঔষধ বিক্রেতা মাহবুবুর রহমান নাদিম তার নিজস্ব ভিজিটিং কার্ডে নামের পাশে ডা. এবং ডিপ্লোমা ইন মেডিসিন (ঢাকা), ডিপ্লোমা ইন সার্জারী (ঢাকা) পদবী যুক্ত করেছেন। একই সাথে মাইজদী ইউনাইটেড হাসপিটালের ডিউটি ডাক্তার পরিচয় দিয়ে গ্রামের গরীব রোগীদের সাথে প্রতারনা করছেন বলে অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় সোনাদিয়া গ্রামের ভুক্তভোগী মো. সোহাগ জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. মজিবুল হক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ভুক্তভোগী সোহাগ অভিযোগে জানান, গত ২ ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যায় আমি অসুস্থ হয়ে স্থানীয় ঔষধ বিক্রেতা মাহবুবুর রহমান নাদিমের দোকানে যাই। তিনি আমাকে ঔষধ না দিয়ে দোকানের পিছনে নিয়ে শারীরিক অবস্থা দেখে পরীক্ষার নামে একটি ব্যবস্থাপত্র লিখে দুইশত টাকা ফি নেন। টাকার অভাবে ওই দিন আর ঔষধ ক্রয় করতে পারিনি।

পরের দিন টাকা নিয়ে গেলে তিনি আামকে তার লেখা ব্যবস্থাপত্র দেখে ঔষধ দেন। কিন্তু তার ঔষুধ সেবন করে আমি এখনো শারীরিকভাবে সুস্থ হয়নি। পরে খোঁজ খবর নিয়ে দেখা যায় তার নামের সাথে যুক্ত ডাক্তারের পদ-পদবী ভূয়া। অভিযোগে আরো বলা হয়েছে, এভাবে তিনি এলাকার শত শত নিরীহ মানুষকে তার প্রচার-প্রচারণায় আকৃষ্ট করে ব্যবস্থাপত্র দিয়ে জনপ্রতি দুই থেকে তিনশত টাকা পর্যন্ত ফি নিয়ে প্রতিনিয়ত প্রতারণা করে যাচ্ছেন।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. মজিবুল হক এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি। এ ব্যাপারে দ্রুত আইনগত যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।