মেইন ম্যেনু

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা

নোয়াখালীর হাতিয়ায় আ’লীগ কার্যালয়ে হামলায় আহত ১২

এম.এ আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সোনাদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামলীলীগ ও ইউপি চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে হামলার ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ১২ জন নেতাকর্মীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের সমর্থকরা। বুধবার দিনগত রাত ১০টার দিকে ইউনিয়নের চরচেঙ্গা বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, চরচেঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. খলিল উল্লা, আওয়ামী লীগ কর্মী ইসমাইল হোসেন, আমির হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মো. রাশেদ, কামরুল ইসলাম, বেলায়েত হোসেন, রিয়াজ, ডা. আনোয়ার, মো. জুয়েল, হাশেম মেম্বার, আনোয়ার।

স্থানীয়রা জানায়, ২২ মার্চ অনুষ্ঠিত সোনাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজিত আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী ইয়াছিন আরাফাত কানুর দলের কর্মী রুহুল আমিন কোম্পানী রাত সাড়ে ৯টার দিকে চরচেঙ্গা বাজারে আসে। এসময় তাকে কে বা কারা মারধর করেছে বলে সে ওই বাজারে তার পক্ষের লোকজনকে জানায়। পরে কানুর কর্মী-সমর্থকরা একত্রিত হয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আওয়ামীলীগ মনোনিত জয়ী চেয়ারম্যান নূর ইসলাম মালেশিয়ার দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। পরে হামলাকারীরা কয়েক দফায় বাজারের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে চরচেঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মো. খলিল উল্লা সহ ১২ নেতাকর্মীকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। খবর পেয়ে হাতিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরিছুল হক জানান, ইয়াছিন আরাফাত কানুর লোকজন চরচেঙ্গা বাজারে নূর ইসলাম চেয়ারম্যানের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় চেয়ারম্যানের কয়েকজন কর্মী আহত হয়েছেন। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে আছে।