মেইন ম্যেনু

নৌকায় ভোট না দিলেই ৫ হাজার টাকা!

বরগুনায় কালো টাকার প্রভাব খাটিয়ে নির্বাচন প্রভাবিত করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আরিফুর রহমান মারুফ মৃধা।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে আরিফুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের আবদুল হাকিমের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে আরিফুর রহমান বলেন, আওয়ামী লীগের নৌকায় ভোট না দিলে পাঁচ হাজার টাকা এবং আনারস প্রতীকে ভোট দিলে ১০ হাজার টাকা দেওয়া হবে বলে এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল হাকিম ও তাঁর কর্মী-সমর্থকরা। তিনি আরো বলেন, তাঁর ও তাঁর পরিবারের রাজনৈতিক সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে জেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতাকর্মী এবং স্থানীয় অধিবাসী ঢাকার কাস্টমস কর্মকর্তা এনায়েত হোসেন, সাব-রেজিস্ট্রার আবদুল বারেক ও সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ী এস এম ফারুক কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে কালো টাকা ছড়িয়ে দিয়ে নির্বাচনে তাঁকে পরাজিত করার কুচক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আরিফুর রহমান মারুফ সাংবাদিক ও প্রশাসনের প্রতি কেওড়াবুনিয়া ইউপি নির্বাচনকে কালো টাকার প্রভাবমুক্ত রাখতে অনুরোধ জানান। সেই সঙ্গে কালো টাকার প্রভাব বিস্তারকারীদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল হাকিম জানান, তাঁর কাছে কোনো কালো টাকা নেই। নির্বাচনী মাঠে অবস্থা খারাপ বুঝতে পেরে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মারুফ তাঁর বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।