মেইন ম্যেনু

নৌবাহিনীতে যুক্ত হলো নতুন তিন যুদ্ধজাহাজ

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর বহরে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্ত হলো নতুন তিনটি যুদ্ধজাহাজ।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পতেঙ্গা নেভাল বার্থে বানৌজা ‘সমুদ্র অভিযান’ এবং বানৌজা ‘স্বাধীনতা’ ও বানৌজা ‘প্রত্যয়’ নামের তিনটি যুদ্ধজাহাজের আনুষ্ঠানিক কমিশনিং করেন। এই সময় প্রধানমন্ত্রী তিন জাহাজের অধিনায়কদের হাতে কমিশনিং ফরমান তুলে দেন।

প্রধানমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক কমিশনিং শেষ হওয়ার পর এই তিন জাহাজ নিয়মিত অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু করবে।

তিন যুদ্ধজাহাজ কমিশনিং অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নৌবাহিনীকে একটি আধুনিক শক্তিশালী ও সক্ষম ত্রিমাত্রিক নৌবাহিনীতে রূপান্তরে বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রয়াসের অংশ হিসেবে নতুন তিন যুদ্ধজাহাজ নৌবহরে যুক্ত হলো। নৌবাহিনীর যুদ্ধবহর সমৃদ্ধ করার পাশাপাশি নৌবাহিনীর নিজস্ব বিমানঘাঁটিসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো বৃদ্ধির পদক্ষেপ গ্রহণের কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের সামুদ্রিক সম্পদ রক্ষা ও দুর্যোগ মোকাবিলায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে আধুনিক নৌবাহিনীর স্বপ্ন দেখেছিলেন তিনি তা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন। সদ্য সংযোজিত ‘সমুদ্র অভিযান, ‘ স্বাধীনতা’ ও ‘প্রত্যয়’ যুদ্ধজাহাজ তিনটি দেশের সম্পদ রক্ষা, নিজ জলসীমায় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা এবং বিশ্বশান্তি রক্ষায় আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে প্রধানমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।

নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা জানান, শনিবার প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক কমিশনিং করা তিন যুদ্ধজাহাজের মধ্যে বানৌজা ‘সমুদ্র অভিযান’ যুক্তরাষ্ট্র থেকে এবং বানৌজা ‘স্বাধীনতা ও ‘প্রত্যয়’ চীন থেকে সংগৃহীত। জাহাজ তিনটি নৌবাহিনীতে অন্তর্ভুক্তির ফলে দেশের বিশাল জলসীমার সার্বভৌমত্ব রক্ষার পাশাপাশি সমুদ্রে অবৈধ অনুপ্রবেশ ও চোরাচালান রোধ, গভীর সমুদ্রে উদ্ধার তৎপরতা বৃদ্ধি, মৎস্য ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ, তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের ব্লকসমূহে অধিকতর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সার্বিকভাবে দেশের ব্লু ইকোনমি উন্নয়নে সহায়ক হবে।