মেইন ম্যেনু

পদত্যাগ করলেন ট্রাম্পের নিরাপত্তা উপদেষ্টা

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিন পদত্যাগ করেছেন। দায়িত্ব গ্রহণের আগেই রাশিয়ার দূতের সঙ্গে যোগাযোগের পরিপ্রেক্ষিতে চলমান বিতর্কের মধ্যেই এই ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন ফ্লিন। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট প্রশাসনকে জানিয়েছিল, রাশিয়ার সঙ্গে অযাচিত যোগাযোগ ফ্লিনকে সংকটাপন্ন পরস্থিতিতে ফেলতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রাশিয়ার দূতের সঙ্গে মাইকেল ফ্লিনের যোগাযোগের খবর নিয়ে বিতর্কের পরিপ্রেক্ষিতে উদ্ভূত ‘পরিস্থিতি যাচাই’ করছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের শপথ নেওয়ার আগে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে মাইকেল ফিন কথা বলেছেন বলে কিছু গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। এর পর থেকেই ফ্লিনকে নজরদারিতে রাখা হয়।

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফ্লিনের পক্ষে প্রকাশ্যে সাফাই গেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ফ্লিন অবশ্য শুরু থেকেই বলেছেন, নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রে সরকারি দায়িত্বে না থাকা নাগরিকদের (প্রাইভেট সিটিজেন) কূটনৈতিক কার্য সম্পাদন অবৈধ। একজন প্রাইভেট সিটিজেন হিসেবে ফ্লিন ট্রাম্প প্রশাসনে নিয়োগ পাওয়ার আগেই গত বছরের শেষের দিকে দূতের সঙ্গে কথা বলেছিলেন।

এ বিষয়ে সোমবার বিকেলে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসার বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট (ট্রাম্প) পরিস্থিতি পর্যালোচনা করছেন। জেনারেলে ফ্লিনের সঙ্গে ভাইস-প্রেসিডেন্টের (পেন্স) কী কথা হয়েছে, তা নিয়েও কথা বলছেন তিনি (ট্রাম্প)।’