মেইন ম্যেনু

পদ্মার পাড় ধসে জেলের মৃত্যু

বাড়ীতে কয়েক দিন ধরেই অভাব চলছিলো। পরিবারের অন্য সদস্যদের মুখে খাবার তুলে দিতে জেলে আজদার রহমান পদ্মায় মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। কিন্তু মাছ ধরে ফেরা হয়নি তার। পদ্মার পাড় ধসে মাটি চাপা পড়ে মারা যান তিনি। গত সোমবার সন্ধ্যায় চারঘাট উপজেলার রাওথা পদ্মা নদীতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আজদার রহমান পাশের বাঘা উপজেলার মৃত জমশেদ আলীর ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার সন্ধ্যার সময় আজদার রহমান পদ্মা নদীতে মাছ ধরতে যায়। এ সময় রাত প্রায় সাড়ে ৮টার দিকে আজদার রহমান চারঘাটের রাওথা এলাকায় পদ্মা নদীতে মাছ ধরার সময় নদীর পাড় ধসে তার ওপরে পড়ে। মাটি চাপা পড়ে আজদার পানিতে ডুবে যায়। পরে আশেপাশে থাকা লোকজন দ্রুত ছুটে এসে তাকে মাটে সরিয়ে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও তার আগেই আজদার মারা যান।

নিহত আজদারের ছোট ভাই আবুল খায়ের জানান, অভাবী সংসার। তিন মেয়ে, এক ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে ৬ জনের পরিবার বড় ভাই আজদার রহমানের। নদীতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করাই তার মুল পেশা। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় মাছ ধতে গেলে রাত আট টা দিক রাওথা এলাকার নিচে নদী থেকে জাল টেনে উপরে উঠানোর সময় হঠাৎ করেই নদীর পাড় ধসে পড়ে তার গায়ের উপর।

এ সময় সে মাটির নিচে চাপা পড়ে। আজদারের স্ত্রী রওশন আরা বেগম জানান, বাড়িতে ভাত খাওয়ার মতো কোনো ব্যবস্থা ছিলো না। তাই সন্ধ্যার সময় আজদার মাছ ধরতে পদ্মা নদীতে যায়।

এ দিকে আজদারের লাশ রাওথা এলাকা থেকে নিজ বাড়ী হরিরামপুরে নিয়ে গেলে সেখানে আজদারের তিন মেয়ে ও এক ছেলেসহ স্ত্রীর কান্নায় আকাশ বাতাস হয়ে উঠে ভারী। দুর-দুরান্ত থেকে ছুটে আসতে থাকে আত্মীয়-স্বজনসহ প্রতিবেশীরা।