মেইন ম্যেনু

পবিত্র আশুরা আজ

আজ বুধবার পবিত্র আশুরা। কারবালার শোকাবহ ঘটনাবহুল এ দিনটি মুসলমানদের কাছে ধর্মীয়ভাবে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। মুসলিম বিশ্বে ত্যাগ ও শোকের প্রতীকের পাশাপাশি বিশেষ পবিত্র দিবস হিসেবে দিনটি পালন করা হয়। বাংলাদেশেও বুধবার যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র আশুরা পালিত হবে।

মহররম মাসের দশম দিবস মুসলমানদের কাছে বিশেষভাবে তাৎপর্যপূর্ণ। ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, আল্লাহর নির্দেশে এ দিন পৃথিবী সৃষ্টি হয়েছিল। এ দিনেই কেয়ামত হবে। পৃথিবী ধ্বংস হবে। ১০ মহররম প্রথম মানুষ হজরত আদম (আ.)-কে সৃষ্টি করা হয় বলে বিশ্বাস করেন মুসলমানরা। আরো অনেক ঘটনার কারণেই মুসলমানদের কাছে স্মরণীয় ১০ মহররম।

তবে আশুরা মুসলমানদের কাছে মূলত শোকের দিন। হিজরি ৬১ সালের এ দিনে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে শাহাদৎবরণ করেন মহানবী হজরত মুহম্মদ (সা.) প্রিয় দৌহিত্র ইমাম হুসাইন (রা.)। তৎকালীন শাসক ইয়াজিদের সৈন্য শিমার ইবনে জিলজুশান মুরাদি দৌহিত্র ইমাম হুসাইন (রা.) কণ্ঠদেশে ছুরি চালিয়ে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে।

ঐতিহাসিক এ শোকাবহ ঘটনার স্মরণে প্রতি বছরের ১০ মহররম মুসলমানরা শোকের আবহে দিনটি পালন করে। শিয়া সম্প্রদায়ের মুসলমানরা মাতম ও তাজিয়া মিছিলে আশুরা পালন করলেও, সুন্নি সম্প্রদায়ের মুসলমানরা আশুরার দিনে নফল রোজা রাখেন।

এ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশব্যাপি বিভিন্ন ধর্মীয় সংগঠন নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বিশ্ব সুন্নি আন্দোলন, বাংলাদেশ সকাল ১১টায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে ‘ঈমানিয়াত ইনসানিয়াত সুরক্ষা সমাবেশ ও বরকতময় সালাতু সালাম মাহফিল’ এর আয়োজন করেছে।

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বিভিন্ন বেসরকারি রেডিও-টিভি চ্যানেলও এই দিনের তাৎপর্য নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে।