মেইন ম্যেনু

পবিত্র স্থানে মুসলমান প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা চায় হিন্দু মহাসভা

ভারতে হিন্দুদের পবিত্র স্থান হিসেবে পরিচিত কাশী, হরিদ্বার ও এলাহাবাদে মুসলমানদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা চেয়েছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন হিন্দু মহাসভা।

সংগঠনটির ভাইস প্রেসিডেন্ট সাধ্বী দেবা ঠাকুর এ নিষেধাজ্ঞা চেয়েছেন।

সাধ্বী দেবা বলেন, মক্কায় যে কারণে হিন্দুরা প্রবেশ করতে পারে না, একই কারণে হিন্দুদের পবিত্র স্থান কাশী, এলাহাবাদ ও হরিদ্বারে মুসলমানদের প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকা উচিত।

গঙ্গা নদীকে পবিত্র করা নিয়েও বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন সাধ্বী দেবা ঠাকুর। তিনি দাবি করেন, গঙ্গা নদীকে যদি পবিত্র করতে হয় তাহলে এর দুই তীরে কোনো মুসলমান বসতি রাখা ঠিক নয়। গঙ্গার কিনারা থেকে মুসলিম বসতি বিলোপ করতে হবে।

ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের বারানসিতে গঙ্গা নদীর পশ্চিম তীরে হিন্দুদের পবিত্র কাশী বিশ্বনাথ মন্দির। একইভাবে গঙ্গা নদীর তীরবর্তী এলাকা হরিদ্বার ও এলাহাবাদকেও পবিত্র স্থান বলে মনে করেন হিন্দুরা।

উল্লিখিত স্থান নিয়ে সাধ্বী দেবা ঠাকুরের মন্তব্যে দেশজুড়ে রীতিমতো সমালোচনা শুরু হয়েছে। ওই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় কংগ্রেস নেতা এবং অন্ধ্রপ্রদেশের রাজ্যসভার সদস্য জয়রাম রমেশ বলেছেন, গঙ্গা সাফাই জাতীয় প্রকল্প। তাই এটাকে হিন্দুত্বের প্রকল্প হিসেবে না দেখাই উচিত। এই গঙ্গা সাফাই প্রকল্প নিয়ে মেরুকরণের রাজনীতি যাতে করা না হয়।

এর আগে গত বছরের এপ্রিলে হিন্দু মহাসভার নেত্রী সাধ্বী দেবা ঠাকুর বলেন, মুসলিম এবং খ্রিস্টানদের সংখ্যা ভারতে ক্রমশই বেড়ে চলেছে। তাই তাদের জনসংখ্যা বৃদ্ধি রোধ করতে কেন্দ্রীয় সরকারকে জরুরি অবস্থা জারি করে প্রয়োজনে জোর করে বন্ধ্যা করতে হবে। পাশাপাশি হিন্দুদের বেশি করে সন্তান জন্ম দিয়ে হিন্দু জনসংখ্যা বাড়ানোর পক্ষেও মত দেন এই হিন্দুত্ববাদী নেত্রী।

বেশি করে হিন্দু দেবদেবীদের মূর্তি স্থাপনের পরামর্শও দেন সাধ্বী দেবা ঠাকুর।