মেইন ম্যেনু

‘পরবর্তী টার্গেট লন্ডন’

লন্ডনসহ বিশ্বের বড় বড় শহরগুলো এখন আইএসের হামলার টাগের্টে। সম্প্রতি ফ্রান্স, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার পর এখন ব্রিটেনেও হামলা চালানোর হুমকি দিয়েছে আইএস। একই সঙ্গে হুমকি দেয়া হয়েছে, বিশ্বের বড় বড় শহরগুলোতেও।ফলে লন্ডনসহ বিভিন্ন দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাদের নাগরিকদের নিরাপত্তায় বাড়তি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের(আইএস)হুমকির পর ব্রিটিনের পুলিশের পক্ষ থেকে গতকাল রাতে দেশজুড়ে সতর্ককতা জারি করা হয়েছে।সতর্ক করা হয়েছে সেদেশের সাধারণ মানুষের চলাচলে।

বুধবার বাংলাদেশেও ব্রিটিশ কাউন্সিলের সব ধরনের কার্যক্রম সাময়িক স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।ধারণা করা হচ্ছে, আইএসের ওই হুমকি পেয়েই নিরাপত্তা জোরদার করা নিয়ে ব্রিটিশ কাউন্সিল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।তবে এ ব্যাপারে ব্রিটিশ কাউন্সিল সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ উল্লেখ করেনি।

ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, যুক্তরাজ্যের ৪৭ হাজার গির্জায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।মঙ্গলবার ফ্রান্সে এক ধর্মযাজককে গলা কেটে হত্যা করার পর নিরাপত্তা জোরদার করার উদ্যোগ নেয় ব্রিটিশ পুলিশ।এ ছাড়া গতকাল জার্মানিতে একইভাবে আরেক যাজককে হত্যা করে জঙ্গিরা। লন্ডনের পুলিশ বলছে, সাম্প্রতিক এসব হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আইএসের হুমকি মোকাবেলায় তারা সতর্কতা অবলম্বন করছেন।

আইএসের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল বলছে, লন্ডন ও ওয়াশিংটন ডিসিকে জঙ্গি গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে বার্তা পাঠানো হয়েছে। তাদের পরবর্তী টার্গেট এই দুই শহর।

গত রাতে ব্রিটেনের ‘কাউন্টার টেরর’ পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গির্জা গির্জায় বিশেষ ধরনের ডিভাইস স্থাপন করা হয়েছে, যাতে কেউ কোনো ধরনের অস্ত্র নিয়ে ঢুকতে না পারে।

ব্রিটেনের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পুলিশ কমিশনার নেইল বসু বলেন, “ফ্রান্স থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করছি। জঙ্গিরা যাতে কোনো ধরনের সুযোগ নিতে না পারে সেটা নিশ্চিত করতে আমরা বদ্ধপরিকর।”