মেইন ম্যেনু

পরিকল্পিতভাবে দেশ অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত চলছে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের চূড়ান্ত রায়কে সামনে রেখে পরিকল্পিতভাবে দেশ অস্থিতিশীল করার চক্রান্ত করা হচ্ছে।

জামায়াত-শিবিরকে নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়েছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘এরা স্বাধীনতাযুদ্ধের পরাজিত সৈনিক। এরা সন্ত্রাসী জঙ্গি সংগঠন। এদের যে কোনো ষড়যন্ত্র কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে।’

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‌মেজর জেনারেল খালেদ মোশাররফ বীর উত্তম স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত এক স্মরণসভায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে দেশে অস্থিতিশীল পরিববেশ সৃষ্টি করার পায়তারা করছে স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-শিবির।’

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘আইএস, আনছারুল্লাহ বাংলা, জেএমবি সব জঙ্গী সংগঠনের দোসর জামায়াত-শিশির। এরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার পায়তারা করছে।’ খুব শিগগিরই মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দুজনের রায় কার্যকর হতে যাচ্ছে বলেই দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার চেষ্টা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

লেখক-ব্লগার হত্যাকাণ্ডের জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘এসব হত্যাকাণ্ডে সন্দেহভাজন কয়েকজনকে ইতোমধ্যে ধরা হয়েছে। বাকীদেরও কিছু দিনের মধ্যে চিহিৃত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।’ বীরউত্তম খালেদ মোশারফের দেশ প্রেমের কথা বলে শেষ করা যাবে না। তার আদর্শকে বুকে ধারণ করে আমাদের আগামী দিনগুলোতে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান আসাদুজ্জামান খান কামাল।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি সালমা খালেদের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকী, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবাহান চৌধুরী, খালেদ মোশাররফের মেয়ে মাহজাবিন খালেদ এমপি প্রমুখ।