মেইন ম্যেনু

পরিষ্কারক হিসেবে রিঠার অসাধারণ ৫ ব্যবহার

চুল পরিষ্কার করতে প্রাকৃতিক শ্যাম্পু হিসেবে রিঠা ব্যবহার করা হয় আদিকাল থেকে। শুধু চুল নয় ঘর পরিষ্কার করতেও রিঠা বেশ কার্যকর। আমাদের দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজে এটি ব্যবহার হয়ে থাকে। এই একটি উপাদান দিয়ে আপনি পরিষ্কার করতে পারেন ঘরের নানা জিনিস।

রিঠার মিশ্রণ তৈরির উপায়:

১। ৬ কাপ পানিতে ১২/১৫ টি রিঠা ভিজিয়ে রাখুন। তারপর এটি সেদ্ধ করুন।

২। এক ঘন্টা সেদ্ধ করার পর চুলা থেকে নামিয়ে ফেলুন। সারারাত এভাবে রেখে দিন।

৩। পরের দিন সকালে একটি বোতলে রিঠা পানি ভরে রাখুন।

৪। এটি এক সপ্তাহ ব্যবহার করতে পারবেন।

৫। আরোও বেশিদিন ব্যবহার করতে চাইলে এর সাথে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে দিন। অনেক দিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে পারবেন।

রিঠার মিশ্রণের ব্যবহার:

১। গয়না পরিষ্কার করতে

গয়নাকে নতুনের মত চকচকে করতে রিঠার পানি বেশ কার্যকর। আপনার গয়নাগুলো রিঠার পানির মধ্যে ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পর একটা পুরনো ব্রাশ দিয়ে ঘষে ঘষে ময়লাগুলো পরিষ্কার করুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। দেখুন গয়নাগুলো নতুনের মত হয়ে গেছে।

২। কাঁচ পরিষ্কার করতে

কাঁচকে নতুনের মত চকচকে করতে রিঠার পানির জুড়ি নিই। একটি বোতলে ২৫০ মিলিলিটার পানির সাথে ১৫ মিলিলিটার রিঠার মিশ্রণ ও সমপরিমাণে ভিনেগার দিয়ে মিশিয়ে নিন। এবার এটি কাঁচ পরিষ্কারক হিসেবে ব্যবহার করুন। কাঁচের ওপর স্প্রে করে শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন।

৩। বাথরুম পরিষ্কার করতে

স্প্রে বোতলে রিঠার মিশ্রণ ঢেলে রাখুন। এটি কমোড এবং এর চারপাশে স্প্রে করে নিন। তারপর ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। কয়েক মিনিট পর ফ্ল্যাশ করে ফেলুন।

৪। প্রাকৃতিক হ্যান্ডওয়াশ

হ্যান্ডওয়াশের বিকল্প হিসেবে রিঠার ব্যবহার করা হয়। হাত ধোয়ার সময় সাবানের পরিবর্তে রিঠার পানি ব্যবহার করুন। হাত পরিষ্কার হয়ে যাবে। সুগন্ধের জন্য এতে লেবুর রস যোগ করতে পারেন। এতে রিঠার পানি অনেকদিন ব্যবহারও করতে পারবেন।

৫। কার্পেট পরিষ্কার করতে

কার্পেটের দাগের ওপর সামান্য রিঠার মিশ্রণ স্প্রে করে ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করে ফেলুন। কিছুক্ষণ পর দেখবেন দাগ একদম গায়েব হয়ে গেছে।