মেইন ম্যেনু

পরীক্ষা নিয়ে টেনশন? মন্দিরে বিক্রি হওয়া ম্যাজিক কলম দিচ্ছে সাফল্যের ১০০% গ্যারান্টি

কয়েক দিন বাদেই পরীক্ষা শুরু হতে চলেছে এমন একজন পরীক্ষার্থীকে কী পরামর্শ দেবেন আপনি? ভাল করে পড়াশোনা করো, নিজের শরীরের যত্ন নাও, অযথা টেনশন করো না— এই তো বলবেন। সম্ভব হলে তার পড়াশোনায় কিছু সাহায্যও করতে পারেন। কিন্তু গুজরাতের এক মন্দির সেই সমস্ত রাস্তায় না হেঁটে পরীক্ষার্থীদের জন্য তৈরি করেছে এক ম্যাজিক পেন। দাবি করা হচ্ছে, এই পেন দিয়ে পরীক্ষা দিলেই নাকি সাফল্য একেবারে গ্যারান্টেড।

এই আজব কলম বিক্রি হচ্ছে গুজরাটের পঞ্চমল জেলার কাষ্ঠভঞ্জন মন্দিরে। দুষ্যন্ত বাপুজি নামের এক হনুমান সেবকের নামে রীতিমতো প্যামফ্লেট বিলি হচ্ছে মন্দির চত্বরে। তাতে দাবি করা হচ্ছে, দুষ্যন্ত বাপুজি হনুমান সরস্বতী যজ্ঞ করার পরে আধ্যাত্মিক শক্তি ভরে দিয়েছেন এই কলমে। তার ফলেই এই পেন অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী হয়ে উঠেছে।

এই প্যামফ্লেটের ছবি শেয়ার করা হয়েছে টুইটারে। তাতে দেখা যাচ্ছে, প্যামফ্লেটের ভাষা রীতিমতো নাটকীয়। প্রথমেই অভিভাবকদের উদ্দেশে রাখা হচ্ছে প্রশ্ন— ‘‘আপনি কি চান আপনার সন্তান পরীক্ষায় ভাল ফল করুক? খারাপ ফলের জন্য আপনার ছেলে বা মেয়ের একটা বছর নষ্ট হতে পারে, এই ভেবে আপনি কি উদ্বিগ্ন?’’ বিজ্ঞাপনী প্যামফ্লেটের শেষে দেওয়া হচ্ছে সাফল্যের গ্যারান্টি। বলা হচ্ছে, ‘‘ আমাদের পেন সেট ব্যবহারের পরেও কোনও পরীক্ষার্থী যদি অভীষ্ট সাফল্য না পায়, তা হলে পেনের সম্পূর্ণ দাম ফেরত দেওয়া হবে।’’

তা এমন জাদু কলমের দাম কত? সাফল্যের প্রতিশ্রুতির যা বহর, সেই তুলনায় দাম বরং কমই— মাত্র ১৯০০ টাকা। তবে দাম দিলেই যে-কেউ এই পেন কিনতে পারবেন না। প্রকৃত পরীক্ষার্থী ছাড়া এই পেন যাতে অন্য কারোর হাতে না পড়ে, তা সুনিশ্চিত করার জন্য প্যামফ্লেটে বলেই দেওয়া হয়েছে যে, এই পেন পেতে গেলে পরীক্ষার রশিদ বা অ্যাডমিট কার্ড, কিংবা স্কুল-কলেজের আই কার্ড দেখাতে হবে। তবেই মিলবে জাদু কলম।
এই কলমে পরীক্ষা দিয়ে সাফল্য পেয়েছে, এমন কোনও পরীক্ষার্থীর সন্ধান অবশ্য এখনও মেলেনি। ততটাই অধরা সেই দুষ্যন্ত বাপুজিও। তবে তাঁর দেখা মিলুক না মিলুক, তাঁর নামে বিতরিত প্যামফ্লেটের ছবি আপাতত ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।